সারাদেশ

গৌরনদীতে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, স্বামী-শ্বশুর গ্রেফতার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

বরিশাল: জেলার গৌরনদী উপজেলায় গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় স্বামী ও শ্বশুরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- গৃহবধূর স্বামী রাকিব সরদার ও শ্বশুর আ. রাজ্জাক সরদার।

বিজ্ঞাপন

ময়নাতদন্তের জন্য মিতুর মরদেহ রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

গৌরনদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. তৌহিদুজ্জামান জানান, গত বছরের মার্চ মাসে উপজেলার আধুনা গ্রামের আব্বাস বেপারির মেয়ে মিতু বেগমের সঙ্গে একই উপজেলার সাঁকোকাঠি গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক সরদারের ছেলে রাকিব সরদারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে দাম্পত্য কলহের জেরে স্বামী রাকিব ও স্ত্রী মিতুর মধ্যে প্রায় ঝগড়াঝাটি হতো। শনিবার সকালে মিতু বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়িতে এলে স্বামী ও শ্বশুর অকথ্য ভাষায় মিতুকে গালাগাল করে। এরপর মিতু বিষপান করেছে জানিয়েছে শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

বিজ্ঞাপন

পরে গৃহবধূ মিতু বেগমকে তার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। কর্তব্যরত চিকিৎসকের কাছে স্বামী রাকিব সরদার জানায়, মিতু কীটনাশক পানে আত্মহত্যা করেছেন।

খবর পেয়ে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আরিফুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে মিতুর মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। এ ব্যাপারে নিহত মিতুর বোন রিতু খানম বাদী হয়ে মিতুর স্বামী রাকিব সরদার ও শ্বশুর আ. রাজ্জাক সরদারকে আসামি করে রোববার সকালে থানায় আত্মহত্যার প্ররোচনায় একটি মামলা করেন।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ অভিযান চালিয়ে স্বামী ও শ্বশুরকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত দু’জনকে রোববার দুপুরে বরিশাল অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানান পরিদর্শক (তদন্ত) তৌহিদুজ্জামান।

সারাবাংলা/এমও


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button