খেলা

১ম সেশন নিজের করে রাখলেন রাহি-তাইজুল

স্পোর্টস ডেস্ক

মিরপুর শের-ই-বাংলায় ঢাকা টেস্টের তৃতীয় দিনে এসে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে বাংলাদেশ। দুই ইনিংস মিলিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের লিড তৃতীয় দিন শেষে ছিল ১৫৪। সফরকারীদের হাতে সাত উইকেট থাকলে টাইগার স্পিনারদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে আশা দেখেছে বাংলাদেশ। চতুর্থ দিনে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে ফিল্ডিংয়ে নেমেছে মুমিনুল হকের দল।

বিজ্ঞাপন

এই রিপোর্ট লেখা অবধি উইন্ডিজের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৯৮ রান। উইকেটে আছেন, বোনার (৩০) এবং জশুয়া (১০)। উইন্ডিজ এগিয়ে আছে ২১১ রানে।

মধ্যাহ্ন বিরতির আগে পর্যন্ত তিন ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানকে তুলে নিয়ে ঢাকা টেস্টের নিয়ন্ত্রণে টাইগাররা। যদিও দ্রুতই তিন উইকেট হারালেও ৭ম উইকেটে বোনার এবং জশুয়া ডি সিলভা মিলে প্রতিরোধ গড়েছেন। এই জুটিতে ২৫ রান তুলে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় উইন্ডিজ।

বিজ্ঞাপন

দিনের শুরু থেকেই উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানদের ওপর চড়াও টাইগার বোলাররা। দ্রুতই রাহীর জোড়া আঘাতের পর তাইজুলের বলে তড়িৎ গতিতে ব্ল্যাকউডকে (৯) স্ট্যাম্পিং করে ফেরান লিটন। আর তাতেই মাত্র ৭৩ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বসে সফরকারিরা।

তৃতীয় দিনের শেষটা যেভাবে টেনেছিল টাইগার বোলাররা চতুর্থ দিনের শুরুটা ঠিক সেখান থেকেই করলেন আবু জায়েদ রাহি। উইন্ডিজের দলীয় রান ৫০ ছুঁতেই রাহির বলে এলবি হয়ে ফেরেন ওয়ারিক্যান। আউট হওয়ার আগে নামের পাশে কেবল দুটি রানই যোগ করতে পেরেছিলেন তিনি। প্রথম টেস্টের ন্যায় ঢাকা টেস্টেও বোনার আর মেয়ার্সের জুটির দিকেই তাকিয়ে ছিল উইন্ডিজ। তবে এই জুটিকে বেশি বড় হতে দেননি আবু জায়েদ রাহি।

বিজ্ঞাপন

১ম সেশন নিজের করে রাখলেন রাহি-তাইজুল

ইনিংসের ৩২তম ওভারের প্রথম বলেই মেয়ার্সকে এলবির ফাঁদে ফেলেন রাহি। আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেওয়া মেয়ার্স শেষ পর্যন্ত প্যাভিলিয়নেই হেঁটেছেন মাত্র ৬ রান নামের পাশে যোগ করে।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছিল বাংলাদেশ। তৃতীয় দিনে এসে গল্পটা পাল্টে গেল। ক্যারিবিয়ানদের চেয়ে এখন খুব বড় ব্যবধানে পিছিয়ে নেই মুমিনুল হকের দল। লিটন কুমার দাস ও মেহেদি হাসান মিরাজের দারুণ এক জুটিতে প্রথম ইনিংসে শেষ পর্যন্ত ২৯৬ রান তুলেছেন স্বাগতিকরা। পরে বোলিং করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় ইনিংসের তিনটা উইকেটও তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ।

প্রথম ইনিংসে ১১৩ রানে পিছিয়ে পড়া বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরতে হলে দ্বিতীয় ইনিংসে দুর্দান্ত বোলিং করতেই হতো। স্বাগতিকরা আজ শেষ বিকেলে দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটা সেভাবে করতেও পেরেছেন। দলীয় ১১ রানের মাথায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটকে ফেরান নাঈম হাসান। নাঈমের লেগ স্ট্যাম্পের বাইরের বলে ব্যাট চালিয়েছিলেন ব্র্যাথওয়েট। ঠিকমতো ব্যাটে-বলে করতে পারেননি। বলে চলে যায় উইকেটরক্ষক লিটন কুমার দাসের গ্লাভসে। আম্পায়ার অবশ্য প্রথমে আবদনে সাড়া দেননি। লিটন সঙ্গে সঙ্গেই রিভিউ নিয়ে নেন। পরে রিপ্লেতে দেখা যায় বল লিটনের গ্লাভসে জমা পড়ার আগে ব্র্যাথওয়েটের গ্লাভসে চুমু দেয়, আউট।

বিজ্ঞাপন

২২ রানের মাথায় মোসলেকে সৌম্য সরকারের ক্যাচ বানিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারের একশ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ২৪তম টেস্ট খেলতে নেমে একশ টেস্ট উইকেট পেলেন মিরাজ, বাংলাদেশের পক্ষে যা দ্রুততমর রেকর্ড। আগের রেকর্ডটি ছিল তাইজুল ইসলামের (২৫ ম্যাচে ১০০ উইকেট)। দিনের শেষভাগে জন ক্যাম্পাবল তাইজুল ইসলামের বলে বোল্ড হলে ৪১/৩ স্কোর নিয়ে দিন শেষ করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

সারাবাংলা/এসএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button