স্বাস্থ্য

৭ম দিনে ভ্যাকসিন নিলেন দেড় লাখের বেশি, গ্রহীতা ছাড়াল ৯ লাখ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ মোকাবিলায় দেশে জাতীয়ভাবে ভ্যাকসিন প্রয়োগের সপ্তম দিনে এক লাখ ৬৯ হাজার ৩৫৩ জন ভ্যাকসিন নিয়েছেন। এর মধ্যে রাজধানীতে ভ্যাকসিন নিয়েছেন ২২ হাজার ৯৮২ জন।

বিজ্ঞাপন

এখন পর্যন্ত দেশে সর্বমোট ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন ৯ লাখ ৬ হাজার ৩৩ জন। ভ্যাকসিন প্রয়োগ পরবর্তী সময়ে ৪২৬ জনের মাঝে হালকা জ্বর, গায়ে ব্যথা এমন লক্ষণ দেখা গেলেও এখনও পর্যন্ত সবাই সুস্থ আছেন।

রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদফতরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমানের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমান সারাবাংলাকে বলেন, ‘যেকোনো ভ্যাকসিন নেওয়ার পরে মানুষের ভ্যাকসিন নেওয়ার স্থান লাল হতে পারে, সামান্য জ্বর আসতে পারে এবং কিছু ক্ষেত্রে ভ্যাকসিন নেওয়ার স্থানসহ শরীরে ব্যথা হতে পারে। ৩৪২৬ জনের ক্ষেত্রে এমনই হয়েছে। এখন পর্যন্ত কারোর মাঝেই এর চেয়ে গুরুতর কিছু দেখা যায়নি।’

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীতে ভ্যাকসিন নিয়েছে ২২ হাজার ৯৮২ জন। এর মধ্যে ১৫ হাজার ৯০৫ জন পুরুষ ও সাত হাজার ৭৭ জন নারী। রাজধানীতে এখন পর্যন্ত এক লাখ ১৮ হাজার ৪৪৭ জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। এর মধ্যে ৮০ হাজার ৭৬২ জন পুরুষ ও ৩৭ হাজার ৬৮৫ জন নারী।

বিজ্ঞাপন

ঢাকা জেলায় এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন নিয়েছে ১২ হাজার ৩৫৯ জন। এর মধ্যে আট হাজার ৪৫৪ জন পুরুষ ও তিন হাজার ৯০৫ জন নারী। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় ভ্যাকসিন নিয়েছেন দুই হাজার ৫১৬ জন। এর মধ্যে এক হাজার ৬৭৮ জন পুরুষ ও ৮৩৮ জন নারী ভ্যাকসিন পেয়েছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা বিভাগে ভ্যাকসিন নিয়েছেন ৪৫ হাজার ৯১৪ জন। এর মধ্যে ৩১ হাজার ১০৫ জন পুরুষ ও ১৪ হাজার ৮০৯ জন নারী। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত দুই লাখ ৩৯ হাজার ৯৭২ জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। ভ্যাকসিন গ্রহণ করার পরে এই বিভাগে ৮৯ জনের মাঝে ভ্যাকসিন নেওয়া পরবর্তী পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। তবে সবাই সুস্থ আছেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ময়মনসিংহ বিভাগে সাত হাজার ৩৫৭ জন ভ্যাকসিন নিয়েছেন। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ৪১ হাজার ২৭৫ জন ভ্যাকসিন নিয়েছেন যার মধ্যে পুরুষ ২৮ হাজার ৫৫৯ জন ও নারী ১২ হাজার ৭১৬ জন। এই বিভাগে ২৪ জনের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেলেও সবাই এখন সুস্থ আছেন।

চট্টগ্রাম বিভাগে এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন নিয়েছেন দুই লাখ ১৮ হাজার ২১৫ জন যার মাঝে এক লাখ ৫১ হাজার ৮৭২ জন পুরুষ ও ৬৬ হাজার ৩৪৩ জন নারী। গত ২৪ ঘণ্টায় এই বিভাগে ভ্যাকসিন নিয়েছে ৩৯ হাজার ৭০৩ জন। এখন পর্যন্ত এই বিভাগে ১১৫ জনের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেলেও সবাই এখন সুস্থ আছেন।

বিজ্ঞাপন

রাজশাহী বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় ভ্যাকসিন নিয়েছেন ১৮ হাজার ৯৬৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১২ হাজার ৬৩৯ জন ও নারী ছয় হাজার ৩২৬ জন। এদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ৪৪ জনের শরীরে দেখা দিয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তবে সবাই সুস্থ আছে এখন পর্যন্ত।

গত ২৪ ঘণ্টায় রংপুর বিভাগে ভ্যাকসিন নিয়েছেন ১৫ হাজার ২১৮ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ৯ হাজার ৯২০ জন ও নারী পাঁচ হাজার ২৯৮ জন। এই বিভাগে ৫৮ জনের মধ্যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেলেও সবাই সুস্থ আছে।

খুলনা বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৯ হাজার ৮০২ জনকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১৩ হাজার ১৪৩ জন পুরুষ, নারী ছয় হাজার ৬৫৯ জন। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ৬৩ জনের মধ্যে দেখা দিয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তবে সবাই সুস্থ আছে এখন পর্যন্ত।

বরিশাল বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে ৯ হাজার ১৯৮ জনকে। এর মধ্যে পুরুষ ছয় হাজার ১৭৪, নারী তিন হাজার ২৪। এই বিভাগে ১৫ জনের মধ্যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে ১৩ হাজার ১৯৬ জনকে। এর মধ্যে পুরুষ ৮ হাজার ২৯২, নারী চার হাজার ৯০৪। এদের মধ্যে ১৮ জনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।

উল্লেখ্য, জনসাধারণ পর্যায়ে ভ্যাকসিন প্রয়োগের প্রথম দিন ৩১ হাজার ১৬০ জন ও দ্বিতীয় দিন ৪৬ হাজার ৫০৯ জন ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন। তৃতীয় দিনে ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন এক লাখ এক হাজার ৮২ জন। চতুর্থ দিনে দেশে এক লাখ ৫৮ হাজার ৪৫১ জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। পঞ্চম ও ষষ্ঠ দিনে ভ্যাকসিন গ্রহণ করে যথাক্রমে দুই লাখ চার হাজার ৫৪০ জন ও এক লাখ ৯৪ হাজার ৩৭১ জন।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বিষয়ে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রথম দিন ২১ জনের মধ্যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিলেও দ্বিতীয় দিন দেখা দেয় ৭১ জনের মধ্যে। তৃতীয় দিন ৯৪ জন এবং চতুর্থ দিন দেখা দিয়েছে ৭০ জনের শরীরে। পঞ্চম দিনে দেশে ৭৬ জনের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়। ষষ্ঠ দিনে ৩১ জনের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। তবে সবাই সুস্থ আছে।

সারাবাংলা/এসবি/পিটিএম


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button