স্বাস্থ্য

৯ম দিনেও ভ্যাকসিন নিলেন সোয়া দুই লাখ, গ্রহীতা ছাড়াল ১৩ লাখ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা:  নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ মোকাবিলায় দেশে জাতীয়ভাবে ভ্যাকসিন প্রয়োগের নবম দিনে দুই লাখ ২৬ হাজার ৯০২ জন ভ্যাকসিন নিয়েছেন। এর মধ্যে রাজধানীতে ভ্যাকসিন নিয়েছেন ৩৪ হাজার ৪৪ জন। এখন পর্যন্ত দেশে সর্বমোট ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন ১৩ লাখ ৫৯ হাজার ৬১৩ জন। ভ্যাকসিন প্রয়োগ পরবর্তী সময়ে ৪৯০ জনের মাঝে হালকা জ্বর, গায়ে ব্যথা এমন লক্ষণ দেখা গেলেও এখনও পর্যন্ত সবাই সুস্থ আছেন।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদফতরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমানের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমান সারাবাংলাকে বলেন, ‘যেকোনো ভ্যাকসিন নেওয়ার পরে মানুষের ভ্যাকসিন নেওয়ার স্থান লাল হতে পারে, সামান্য জ্বর আসতে পারে এবং কিছু ক্ষেত্রে ভ্যাকসিন নেওয়ার স্থানসহ শরীরে ব্যথা হতে পারে। এখন পর্যন্ত কারোর মাঝেই এর চেয়ে গুরুতর কিছু দেখা যায়নি।’

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীতে ভ্যাকসিন নিয়েছে ৩৪ হাজার ৪৪ জন। এর মধ্যে ২২ হাজার ৪০৭ জন পুরুষ ও ১১ হাজার ৬৩৭ জন নারী। রাজধানীতে এখন পর্যন্ত এক লাখ ৮১ হাজার ৫৪৬ জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। এর মধ্যে এক লাখ ২২ হাজার ৮৮৩ জন পুরুষ ও ৫৮ হাজার ৬৬৩ জন নারী।

ঢাকা জেলায় এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন নিয়েছে ২১ হাজার ৮২৫ জন। এর মধ্যে ১৪ হাজার ৮৯৪ জন পুরুষ ও ছয় হাজার ৯৩১ জন নারী। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় ভ্যাকসিন নিয়েছেন চার হাজার ৯৩৬ জন। এর মধ্যে তিন হাজার ৩৯০ জন পুরুষ ও এক হাজার ৫৪৬ জন নারী ভ্যাকসিন পেয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা বিভাগে ভ্যাকসিন নিয়েছেন ৭২ হাজার ৭৩৯ জন। এর মধ্যে ৪৭ হাজার ৮৮৫ জন পুরুষ ও ২৪ হাজার ৮৫৪ জন নারী। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত তিন লাখ ৭৫ হাজার ৪৪৪ জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। ভ্যাকসিন গ্রহণ করার পরে এই বিভাগে ১১০ জনের মাঝে ভ্যাকসিন নেওয়া পরবর্তী পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। তবে সবাই সুস্থ আছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ময়মনসিংহ বিভাগে ৯ হাজার ৮৭২ জন ভ্যাকসিন নিয়েছেন। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ৬০ হাজার ৬০২ জন ভ্যাকসিন নিয়েছেন যার মধ্যে পুরুষ ৪০ হাজার ৬৯২ জন ও নারী ১৯ হাজার ৯১০ জন। এই বিভাগে ২৯ জনের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেলেও সবাই এখন সুস্থ আছেন।

বিজ্ঞাপন

চট্টগ্রাম বিভাগে এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন নিয়েছেন তিন লাখ ১৯ হাজার ৯৫৯ জন যার মাঝে দুই লাখ ১৯ হাজার ১৫৯ জন পুরুষ ও এক লাখ ৮০ জন নারী। গত ২৪ ঘণ্টায় এই বিভাগে ভ্যাকসিন নিয়েছে ৪৯ হাজার। এখন পর্যন্ত এই বিভাগে ১২৫ জনের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেলেও সবাই এখন সুস্থ আছেন।

রাজশাহী বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় ভ্যাকসিন নিয়েছেন ২৪ হাজার ৯২০ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১৬ হাজার ৪৭৫ জন ও নারী আট হাজার ৪৪৫ জন। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন নিয়েছেন এক লাখ ৫৩ হাজার ৬৮৩ জন। এর মধ্যে এক লাখ চার হাজার ৫৫১ জন পুরুষ ও ৪৯ হাজার ১৩২ জন নারী। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ৪৫ জনের শরীরে দেখা দিয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তবে সবাই সুস্থ আছে এখন পর্যন্ত।

বিজ্ঞাপন

গত ২৪ ঘণ্টায় রংপুর বিভাগে ভ্যাকসিন নিয়েছেন ২০ হাজার ৮১১ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ১৩ হাজার ৪৭৬ জন ও নারী সাত হাজার ৩৩৫ জন। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন নিয়েছেন এক লাখ ২৭ হাজার ৪৪৫ জন। এর মধ্যে ৮৬ হাজার ৯৬৯ জন পুরুষ ও ৪০ হাজার ৪৭৬ জন নারী। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ৫৯ জনের শরীরে দেখা দিয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তবে সবাই সুস্থ আছে এখন পর্যন্ত।

খুলনা বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ হাজার ২৬ জনকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১৬ হাজার ৩৪০ জন পুরুষ, নারী ৮ হাজার ৬৮৬ জন। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন নিয়েছেন এক লাখ ৫৩ হাজার ১৮৫ জন। এর মধ্যে এক লাখ চার হাজার ৪৩১ জন পুরুষ ও ৪৮ হাজার ৭৫৪ জন নারী। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ৭৪ জনের শরীরে দেখা দিয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তবে সবাই সুস্থ আছে এখন পর্যন্ত।

বরিশাল বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে ১২ হাজার ১৩৬ জনকে। এর মধ্যে পুরুষ ৮ হাজার ১৯৪, নারী তিন হাজার ৯৪২। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন নিয়েছেন ৬৩ হাজার ৬৫৯ জন। এর মধ্যে ৪৪ হাজার ১৬ জন পুরুষ ও ১৯ হাজার ৬৪৩ জন নারী। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ২৪ জনের শরীরে দেখা দিয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তবে সবাই সুস্থ আছে এখন পর্যন্ত।

গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে ১২ হাজার ৩৯৮ জনকে। এর মধ্যে পুরুষ ৮ হাজার ২২০, নারী চার হাজার ১৭৮ জন। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন নিয়েছেন এক লাখ পাঁচ হাজার ৬৩৬ জন। এর মধ্যে ৬৯ হাজার ৪৯৪ জন পুরুষ ও ৩৬ হাজার ১৪২ জন নারী। এই বিভাগে এখন পর্যন্ত ২৪ জনের শরীরে দেখা দিয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তবে সবাই সুস্থ আছে এখন পর্যন্ত।

উল্লেখ্য, জনসাধারণ পর্যায়ে ভ্যাকসিন প্রয়োগের প্রথম দিন ৩১ হাজার ১৬০ জন ও দ্বিতীয় দিন ৪৬ হাজার ৫০৯ জন ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন। তৃতীয় দিনে ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন এক লাখ এক হাজার ৮২ জন। চতুর্থ দিনে দেশে এক লাখ ৫৮ হাজার ৪৫১ জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। পঞ্চম ও ষষ্ঠ দিনে ভ্যাকসিন গ্রহণ করে যথাক্রমে দুই লাখ চার হাজার ৫৪০ জন ও এক লাখ ৯৪ হাজার ৩৭১ জন। সপ্তম দিনে ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন এক লাখ ৬৯ হাজার ৩৫৩ জন। অষ্টম দিনে ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন দুই লাখ ২৬ হাজার ৬৭৮ জন ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বিষয়ে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রথম দিন ২১ জনের মধ্যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিলেও দ্বিতীয় দিন দেখা দেয় ৭১ জনের মধ্যে। তৃতীয় দিন ৯৪ জন এবং চতুর্থ দিন দেখা দিয়েছে ৭০ জনের শরীরে। পঞ্চম দিনে দেশে ৭৬ জনের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়। ষষ্ঠ দিনে ৩১ জনের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। সপ্তম দিনে ১৮ ও অষ্টম দিনে ২১ জনের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। তবে সবাই সুস্থ আছে। অষ্টম দিনে ২৯ জনের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়।

সারাবাংলা/এসবি


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button