খেলা

ভাষা শহিদদের প্রতি সাকিব-তামিমদের অতল শ্রদ্ধা

স্পোর্টস ডেস্ক

১৯৪৭ সালে পাকিস্তান রাষ্ট্র ভাগ হয়েছিল ধর্মের মানদণ্ডে। এই ‘অদূরদর্শী’ বিভাজন এক সময় আঘাত হানে ভাষার ওপর। যারা রক্ষক হয়েছিলেন দেশভাগের পরপরই তারা পরিণত হলেন ভক্ষকে। ফলে পূর্ব জনপদের বিপুল মানুষের আত্মার সঙ্গে মিশে থাকা প্রাণের বাংলাভাষায় ওপর আসে প্রথম আঘাত। পশ্চিম পাকিস্তানের শাসকগোষ্ঠী এ অঞ্চলের মানুষের ওপর পরিয়ে দিতে চায় উর্দু ভাষার শেকল। দেশভাগের পরের বছরেই শুরু হয় এই অপচেষ্টা।

বিজ্ঞাপন

জনমত কিংবা জনদাবি যাই-ই বলা হোক না কেন, মধুর বাংলাভাষার আপ্রাণ চাওয়া ডিঙিয়ে ঘোষণা করা হয়, ‘উর্দু এবং উর্দুই হবে পাকিস্তানের একমাত্র রাষ্ট্রভাষা।’

উর্দু ভাষার আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টায়; পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার অগ্রমানুষ মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ’র এই হীনপ্রচেষ্টা ক্ষোভের সঞ্চার করে এ জনপদে। ফলে রাষ্ট্রভাষা প্রতিষ্ঠার দাবি দিনের পর দিন জোরালো হয়ে ওঠে। ‘মায়ের ভাষা বাংলা চাই, রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই’—এই দাবি গতি সঞ্চার করে বাঙালিজীবনের মন ও মানসিকতায়।

বিজ্ঞাপন

ভাষা শহিদদের প্রতি সাকিব-তামিমদের অতল শ্রদ্ধা

মায়ের ভাষাকে রক্ষায় বাংলার দামালেরা নেমে পড়েছিল রাস্তায়, শহীদ হয়েছিলেন সেদিন। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররাও। নিজেরদের অফিসিয়াল ফেইসবুক পেজে সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিমসহ সকল ক্রিকেটাররাই এই দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

সাকিব আল হাসান লিখেছেন, ‘সবারই রয়েছে তার মাতৃভাষায় কথা বলার অধিকার। আর আমাদের সেই অধিকার রক্ষার জন্য ১৯৫২ সালের এই দিনে আমাদের ভাষা সৈনিকেরা প্রাণের মায়া ত্যাগ করে নেমে এসেছিলেন রাজপথে। স্মরণ করছি সকল ভাষাসৈনিকদের, যাদের জন্য আজ গর্ব করে কথা বলতে পারি বাংলা ভাষায়।’

বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম লিখেছেন, ‘সকল ভাষা শহীদদের প্রতি জানাই বিনম্র শ্রদ্ধা ও দোয়া…যাদের আত্বত্যাগে আমরা পেয়েছি আমাদের মাতৃভাষা “বাংলা”। সবাইকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের শুভেচ্ছা।’

বিজ্ঞাপন

ভাষার জন্য কোন জাতির এত বড় আত্মত্যাগ পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। তাই ইউনেস্কো ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর দিনটিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতি দেয়। ২০০০ সাল থেকে বিশ্বের সব দেশই দিবসটিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button