আন্তর্জাতিক

চীনে সেনাবাহিনীকে কটাক্ষ করে ব্লগার গ্রেফতার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চীন-ভারত দ্বৈরথে মৃত চীনা সেনা সদস্যদের কটাক্ষ করে জনপ্রিয় মাইক্রোব্লগিং সাইট উইবোতে মন্তব্য প্রকাশ করায় এক ব্লগারকে গ্রেফতার করেছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

বিজ্ঞাপন

চীনা কর্তৃপক্ষের বরাতে চায়না ডেইলি জানিয়েছে, ৩৮ বছর বয়সী ওই ব্লগার ‘কিউ’ গালওয়ান সীমান্তে সংঘর্ষ নিয়ে খুবই নোংরাভাবে সত্যকে বিকৃত করে মন্তব্য প্রকাশ করেছেন।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) তার গ্রেফতারের ব্যাপারে সংবাদ মাধ্যমকে জানানো হয়েছে। যদিও, তাকে ১৯ ফেব্রুয়ারি নিরাপত্তা বাহিনীর হেফাজতে নেওয়া হয়। চীনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম উইবো তে তার প্রায় ২৫ লাখ অনুসারী আছে। উইবো কর্তৃপক্ষ গত সপ্তাহে এক বছরের জন্য কিউ’র অ্যাকাউন্টটি স্থগিত ঘোষণা করে।

বিজ্ঞাপন

একই অভিযোগে চীনে অন্তত সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানায় বিবিসি।

২০২০ সালের জুনে হিমালয় অঞ্চলের বিতর্কিত গালওয়ান ভ্যালিতে চীন ও ভারতের সীমান্তরক্ষীদের মধ্যে আগ্নেয়াস্ত্র ছাড়াই ভয়াবহ সংঘর্ষে ভারতের অন্তত ২০ সেনার মৃত্যু হয়। ওই সময় চীন তাদের পক্ষের সেনা হতাহত হওয়ার কথা স্বীকার করলেও কতজন সেনার মৃত্যু হয়েছে সে ব্যাপারে কিছু জানায়নি। পরে, কয়েকদিন আগে চীনের তরফ থেকে চার সেনার মৃত্যুর বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার করে নেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

লাদাখে চীন ও ভারতের বিরোধপূর্ণ সীমান্তে ৪৫ বছরের মধ্যে সেটিই ছিল প্রথম প্রাণহানির ঘটনা।

এদিকে, চীনে ২০১৮ সালের এক আইন অনুসারে জাতীয় বীর এবং শহীদদের নামে অপমানজনক মন্তব্য করা নিষিদ্ধ এবং আইনের চোখে শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এই আইনের আওতায় দোষীসাব্যস্ত হলে সর্বোচ্চ তিন বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে।

বিজ্ঞাপন

তবে, এই আইনের আওতায় এখনই কাউকে অভিযুক্ত করা যাবে না বলেও জানায় চায়না ডেইলি। কারণ, আইনটির সংশোধনী এখনো কার্যকর হয়নি। মার্চ থেকে সংশোধিত আইনটি ‍কার্যকর হওয়ার কথা রয়েছে।

চায়না ডেইলি জানায়, ওই ব্লগার যদি কাজটি আর মাত্র ১০ দিন পরে করতেন, তাহলেই তিনি হতেন নতুন আইনের আওতায় সাজাপ্রাপ্ত প্রথম ব্যক্তি। এটা খুবই দুঃখজনক।

বিজ্ঞাপন

পুলিশের দাবি, ব্লগার কিউ তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছেন। বলেছেন, তিনি ইন্টারনেটে লোকজনের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্যই ঔদ্ধত্যপূর্ণ মতামত প্রকাশ করেছেন, উইবোতে তথ্যের বিকৃতি ঘটিয়েছেন এবং যেসব বীর সেনা সীমান্ত রক্ষা করছিল তাদের নামে কলঙ্ক রটিয়েছেন।

সারাবাংলা/একেএম


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button