রাজধানী

না ফেরার দেশে সৈয়দ আবুল মকসুদ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দেশের বিশিষ্ট লেখক-গবেষক, কলামিস্ট ও মানবাধিকার কর্মী সৈয়দ আবুল মকসুদ আর নেই। মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে সন্ধ্যা ৭টার দিকে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। স্কয়ার হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. ফয়সাল হক তার মৃত্যুর তথ্য সারাবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন

ডা. ফয়সল বলেন, আমাদের এখানে যখন তাকে আনা হয়, তখন তার শরীরে প্রাণের চিহ্ন ছিল না। তারপরও নিশ্চিত হওয়ার জন্য ইসিজিসহ কিছু পরীক্ষা করা হয়। সন্ধ্যা ৭টা ৯ মিনিটে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

স্কয়ার হাসপাতালের পরিচালক ওয়াহিউদ্দিন মাহমুদ সারাবাংলাকে বলেন, ‘আমাদের হাসপাতালের আনার পরে আমরা উনাকে মৃত অবস্থায় পাই। সন্ধ্যা ৭তটার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।’

বিজ্ঞাপন

সৈয়দ আবুল মকসুদের ছেলে সৈয়দ নাসিফ মকসুদ সারাবাংলাকে বলেন, ‘বাবা বিকেলের দিকে হঠাৎ করেই শ্বাসকষ্ট অনুভব করেন। আমরা সঙ্গে সঙ্গে তাকে স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে আসি। একটু আগেই তিনি মারা গেছেন।’

সৈয়দ আবুল মকসুদের উল্লেখযোগ্য গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে কবিতা: বিকেলবেলা, দারা শিকোহ ও অন্যান্য কবিতা; প্রবন্ধ: যুদ্ধ ও মানুষের মূর্খতা, বাঙালির সাংস্কৃতিক উত্তরাধিকার, পূর্ববঙ্গে রবীন্দ্রনাথ, রবীন্দ্রনাথের ধর্মতত্ত্ব ও দর্শন, ঢাকায় বুদ্ধদেব বসু প্রভৃতি; জীবনী: সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহর জীবন ও সাহিত্য, মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী, গোবিন্দচন্দ্র দাসের ঘর-গেরস্থালি ; ভ্রমণকাহিনি: জার্মানির জার্নাল, পারস্যের পত্রাবলি।

বিজ্ঞাপন

তিনি বাংলাদেশে গান্ধি-গবেষণার পথিকৃৎ। তার গান্ধিবিষয়ক গ্রন্থ: Gandhi, Nehru and Noakhali ও Gandhi Camp। চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত ‘দৈনিক সুপ্রভাত বাংলাদেশ’র প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ছিলেন তিনি। তিনি তার অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে বাংলা একাডেমি পুরস্কার, ঋষিজ পুরস্কারসহ বিভিন্ন পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

সারাবাংলা/এসবি/পিটিএম


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button