আইন-বিচার

র‌্যাবের বিরুদ্ধে কার্টুনিস্ট কিশোরকে নির্যাতনের অভিযোগ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরের নির্যাতনের অভিযোগ এনে র‌্যাবের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ আনা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তার আইনজীবী এই অভিযোগ করেন।

অভিযোগে বলা হয়, ২০২০ সালের ৬ মে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় লালমাটিয়ার বাসা হতে র‌্যাব-৩-এর সদস্যরা তাকে গ্রেফতার করেন। এরপর কয়েকজন র‌্যাব সদস্য তাকে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন করেন৷ যার ফলে তিনি দুই পায়ের মাঝে এবং বাম পায়ে আঘাত পান। র‌্যাব সদস্যরা ওই নির্যাতন ২০১৩ সালের নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু নিবারণ আইন মোতাবেক সুনির্দিষ্ট ফৌজদারি অপরাধ, যা বিজ্ঞ মহানগর দায়রা জজ আদালতের এখতিয়ারাধীন।

বিজ্ঞাপন

গত মে মাসের রমনা থানার মামলার রিমান্ড শুনানিকালে আসামিকে সংশ্লষ্ট আদালতে উপস্থাপনের আদেশ চেয়ে এই দরখাস্ত দাখিল করেন কিশোরের আইনজীবী। মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিম আবেদনটি ওই থানার আমলী আদালতে শুনানির পরামর্শ দেন। এরপর আমলী আদালতের দায়িত্বপ্রাপ্ত ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু বকর ছিদ্দিকের আদালতে আবেদনের শুনানি হয়৷

শুনানিতে আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, কিশোরকে গত মে মাসে গ্রেফতারের পর অমানবিক নির্যাতন করে র‌্যাব। নির্যাতনের ফলে সে উঠে দাঁড়াতে পারছিল না। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি মামলার নিয়মিত তারিখে চিরকুট দিয়ে তিনি এই তথ্য জানান। তাই আমরা নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু নিবারণ আইনে মামলা দায়ের করব। এই মামলার আমলী আদালত মহানগর দায়রা জজ। আসামি উপরোক্ত মামলায় গ্রেফতার থাকায় তাকে উপযুক্ত আদালতে বাদীর জবানবন্দি প্রদানের জন্য উপস্থাপনের আদেশ প্রদান করা হোক।

বিজ্ঞাপন

এরপর বিচারক বলেন, যেহেতু আমরা এই আদালতের অধীনস্থ, তাই এমন আদেশ প্রদানের এখতিয়ার আমাদের নেই। আপনারা বিজ্ঞ মহানগর দায়রা জজ আদালতে উক্ত দরখাস্ত দাখিল করলে আদালতই এই মামলার নথি তলব করে তাকে আদালতে হাজিরের জন্য পিডব্লিউ ইস্যু করতে পারবেন৷ এমন কথা বলে বিচারক আবেদনটি সংশ্লিষ্ট আইনজীবীকে ফেরৎ দেন।

এর আগে মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা উপপুলিশ পরিদর্শক মো. আফসর আহমেদ গত ২৩ ফেব্রুয়ারি তিন দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। অপরদিকে কিশোরে পক্ষের আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ুয়া রিমান্ড বাতিল চেয়ে শুনানি করেন। শুনানি শেষে রিমান্ডের আবেদন না মঞ্জুর করেন।

বিজ্ঞাপন

কার্টুনিস্ট কিশোর তার ‘আমি কিশোর’ ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেশের করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সরকারের ভূমিকা নিয়ে বিভিন্ন সমালোচনামূলক কার্টুন-পোস্টার পোস্ট করতেন। মুশতাক তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে কিশোরের সেসব পোস্টের কয়েকটি শেয়ার করতেন। এই মামলার ১১ জনকে আসামি করা হয়েছে।

সারাবাংলা/এআই/এমআই


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button