অর্থ-বাণিজ্য

ঊর্ধ্বমুখী সূচকে পুঁজিবাজার

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে পুঁজিবাজারে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দিয়ে শেষ হয়েছে লেনদেন। এদিন দেশের উভয় পুঁজিবাজারে সূচকের সঙ্গে বেড়েছে লেনদেন হওয়া বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (১ মার্চ) দিনশেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক বাড়লেও কমেছে আর্থিক ও শেয়ার লেনদেন। তবে অপর পুঁজিবাজার চট্রগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক ও লেনদেন উভয় বেড়েছে।

সোমবার দিনশেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৩৫২টি কোম্পানির ১৫ কোটি ৪২ লাখ ৫৮ হাজার ২২৭টি শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। লেনদেন হওয়া বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে দাম বেড়েছে ১২৯টির, কমেছে ১০৫টির এবং ১১৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম অপরিবর্তিত ছিল।

বিজ্ঞাপন

দিনশেষে ডিএসইতে আর্থিক লেনদেনের পরিমাণ দাড়াঁয় ৬১৮ কোটি টাকা। আগের দিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৬৬০ কোটি ৬ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট।

অন্যদিকে, এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসই এক্স ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ২২ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৪২৬ পয়েন্টে উঠে আসে। ডিএসই শরিয়া সূচক ৬ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২২৯ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১২ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ৬৯ পয়েন্টে উঠে আসে।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, এদিন অপর পুঁজিবাজার চট্রগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ২২৬টি কোম্পানির ১ কোটি ২৭ লাখ ৫০ হাজার ৮৫৪টি শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। লেনদেন হওয়া এসব শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে দাম বেড়েছে ১০৩টির, কমেছে ৫৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৬৮টির কোম্পানির শেয়ারের দাম।

দিনশেষে সিএসইর প্রধান সূচক আগের দিনের চেয়ে ১০৩ পয়েন্ট বেড়ে ১৫ হাজার ৭০৩ পয়েন্টে উঠে আসে। এদিন সিএসইতে ৩৫ কোটি ৭৮ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়। আগের দিন সিএসইতে ২৪ কোটি ৪২ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/এমআই


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button