বিনোদন

করোনায় প্রাণ গেল পপ তারকা জানে আলমের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ের জনপ্রিয় পপ তারকা জানে আলম। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নিউমোনিয়াতেও আক্রান্ত হয়েছিলেন এই সংগীতশিল্পী, গীতিকার, সুরকার ও সংগীত পরিচালক।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২ মার্চ) রাত ১০টার দিকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন জানে আলম। তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর।

বিএসএমএমইউয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রশান্ত মজুমদার সারাবাংলাকে বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রায় মাসখানেক হলো চিকিৎসা নিচ্ছিলেন জানে আলম। এর মধ্যে তার নিউমোনিয়াও হয়েছিল। তবে শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়নি।

বিজ্ঞাপন

প্রশান্ত মজুমদার বলেন, মঙ্গলবার তাকে লাইফ সাপোর্টেও নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাকে বাঁচানো যায়নি। রাত ১০টার দিকে তিনি মারা যান।

জানে আলমের মৃত্যুর সংবাদটি জানিয়েছেন সংগীত প্রযোজনা সংস্থা সিডি চয়েসের কর্ণধার জহিরুল ইসলাম সোহেলও। ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, আমাদের সবার প্রিয় লিজেন্ড শিল্পী জানে আলম ভাই আর আমাদের মাঝে নেই। কিছুক্ষণ আগে ইন্তেকাল করেছেন পিজি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায়।

বিজ্ঞাপন

মানিকগঞ্জের হরিরামপুর গ্রামে জন্ম জানে আলমের। স্বাধীনতা পরবর্তী প্রথম প্রজন্মের সংগীতশিল্পীদের অন্যতম তিনি। ওই সময় পপ কিংবদন্তী আজম খান তুমুল জনপ্রিয় ছিলেন। তাকে গুরু মেনেই পপ গানের জগতে যাত্রা জানে আলমের। ওই সময় পপ ঘরানার সঙ্গে লোকসংগীত ও আধ্যাত্মবাদী ধারার সংমিশ্রণ ঘটিয়ে নিজের স্বতন্ত্র পরিচয় গড়ে তোলেন তিনি।

প্রথম অ্যালবাম ‘বনমালী’ দিয়েই সংগীতপ্রিয় মানুষদের কাছে পরিচয় পান জানে আলম। পরবর্তী সময়ে ‘একটি গন্ধমের লাগিয়া’, ‘ইস্কুল খুইলাসে রে মওলা’, ‘দয়াল বাবা কেবলা কাবা’, ‘আমার অন্তরায়’, ‘বাবা ভান্ডারি’, ‘মনে যারে চায়’, ‘ধরি ধরি সন্ধান করি’র মতো গান দিয়ে অসামান্য জনপ্রিয়তা অর্জন করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

জানে আলম নিজ কণ্ঠেই প্রায় চার হাজার গান গেয়েছেন। এছাড়া অন্যদের কণ্ঠে তার লেখা, সুর ও সংগীত পরিচালনায় গান রয়েছে তিন হাজারেরও বেশি। ফকির আলমগীর,

অ্যান্ড্রু কিশোর, বেবী নাজনীন, খালিদ হাসান মিলু, মমতাজ, ডলি সায়ন্তনী, রবি চৌধুরী, মনির খান, এস ডি রুবেলের মতো জনপ্রিয় শিল্পীরাও তার সৃষ্টি করা গান গেয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

দোয়েল প্রোডাক্টস নামে নিজের একটি সংগীত প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানও ছিল জানে আলমের। তার নিজের গাওয়া গানের সিডি বের হয়েছে ৮০টিরও বেশি।

সারাবাংলা/এসবি/এজেডএস/টিআর


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button