আইন-বিচার

চাকরির কথা বলে ডেকে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ, নারীসহ ২ জন কারাগারে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ব্যাংকে চাকরি দেওয়ার কথা বলে এক নারীকে (৩৫) বাসায় ডেকে গণধর্ষণ করার অভিযোগের মামলায় রিমান্ড শেষে নারীসহ ২ জনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (৮ মার্চ) সবুজবাগ থানা পুলিশ দুই আসামিকে আদালতে হাজির করেন। এরপর আসামিরা স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হওয়ায় তা রেকর্ড করার আবেদন করা হয়। পরবর্তীতে আসামিরা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে অস্বীকৃতি জানায়। পরে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সত্যব্রত শিকদার তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

রিমান্ড যাওয়া হলেন- বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) কর্মচারী সনজিব কুমার দাস ও তার সহযোগী আনিকা।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, গত ২ মার্চ আসামিদের ৫ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। গত ১ মার্চ রাতে মাদারটেক এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে সবুজবাগ থানা পুলিশ।

জানা যায়, কেরানীগঞ্জের বাসিন্দা এক নারীকে ব্যাংকে চাকরি দেওয়ার নাম করে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ মাদারটেকের একটি বাসায় ডেকে আনে সনজিব দাস। তার সঙ্গে রাসেল, জামাল, আজিজুর রহমান ও আনিকা নামে এক নারী ওই বাসায় ছিলেন। ওই বাসাতেই ওই নারীকে সনজিবসহ বাকিরা পালাক্রমে ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় ১ মার্চ সবুজবাগ থানায় সনজিবকে ১ নম্বর আসামি করে মোট পাঁচ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন ধর্ষণের শিকার ওই নারী। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে আনিকা ও সনজিবকে গ্রেফতার করে।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, ধর্ষণের শিকার ওই নারী মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন, পাঁচ বছর আগে স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয় তার। এরপর একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। গত ১০ ফেব্রুয়ারি পূর্বপরিচিত সনজিবের সঙ্গে সাক্ষাৎ হলে কুশল বিনিময়ের সময় তিনি তার সন্ধানে ব্যাংকে ভালো চাকরি থাকার কথা জানান। পরে চাকরি দেওয়ার কথা বলে মাদারটেকের ওই বাসায় ডেকে নেন। একপর্যায়ে সেখানে উপস্থিত পুরুষ সদস্যরা তাকে গণধর্ষণ করেন। সেখানে উপস্থিত নারী আনিকা এ কাজে তাদের সহায়তা করেন। ঘটনা জানাজানি হলে সনজিব তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেন বলেও উল্লেখ করা হয়।

সারাবাংলা/এআই/এমও


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button