অপরাধ

স্ত্রীর যৌতুকের মামলায় প্রকৌশলী গ্রেফতার

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: যৌতুক দাবি ও খোরপোষ না দেওয়ার অভিযোগে স্ত্রীর দায়ের করা দুই মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ইঞ্জিনিয়ারিং শাখার প্রকৌশলী শাহনেওয়াজ ইসলাম চৌধুরী (৩৮)।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (১২ মার্চ) রাতে লালবাগের একটি বাসা থেকে ওই প্রকৌশলী শাহনেওয়াজকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

প্রকৌশলী শাহনেওয়াজকে গ্রেফতারের তথ্য নিশ্চিত করেছেন লালবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম আশরাফ উদ্দিন। তিনি জানান, আজ শনিবার (১৩ মার্চ) তাকে আদালতে হাজির করা হবে।

বিজ্ঞাপন

ওসি কে এম আশরাফ উদ্দিন বলেন, ওই প্রকৌশলীর স্ত্রী ঢাকার আদালতে মামলা করেছিলেন। সেই মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানা থানায় এলে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এর আগে, গত ৪ মার্চ ঢাকার সিএমএম আদালতের বিচারক সুব্রত কুমার তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

বিজ্ঞাপন

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০১৯ সালের ১৫ আগস্ট পারিবারিকভাবে প্রকৌশলী শাহনেওয়াজের সঙ্গে বিয়ে হয় বাদীর। বিয়েতে কাবিনের টাকা ধরা হয় পাঁচ লাখ টাকা। বিয়ের পর থেকেই শুরু হয় পারিবারিক কলহ। বাদীর ভাইকে ডেকে যৌতুক চান শাহনেওয়াজ। বলেন, না দিতে পারলে তার বোনের সঙ্গে সংসার করতে পারবেন না তিনি। শাহনেওয়াজের মা-ও ছেলেকে সমর্থন দেন। এক পর্যায়ে বোনকে নিয়ে ভাই ওই বাসা থেকে চলে আসেন।

এজাহারে আরও বলা হয়, দীর্ঘ দিন ধরে দুই পক্ষের আত্মীয়-স্বজন নিয়ে পারিবারিকভাবে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা হয়েছে। কিন্তু শাহনেওয়াজ কোনো কথা না শুনে বরং হয়রানি করেছেন। পরে তিনি দেনমোহর ও খোরপোষ দিতেও অস্বীকার করেন। ২০২০ সালের ১৫ ডিসেম্বর যৌতুক দাবি ও খোরপোষ না দেওয়ার অভিযোগে দুইটি মামলা দায়ের করেন।

বিজ্ঞাপন

বাদীর আইনজীবী অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান বলেন, মামলা দায়েরের পর আদালতের নির্দেশনা পুলিশের মাধ্যমে ওই প্রকৌশলীকে জানানো হয়। গত ৩ মার্চ ছিল মামলার শুনানি। কিন্তু তিনি উপস্থিত না হয়ে আদালতকে অগ্রাহ্য করেছেন। এরপর আদালত ওই প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

আইনজীবী আরও বলেন, মামলায় শাহনেওয়াজের পাশাপাশি তার মা’কেও আসামি করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, শাহনেওয়াজকে গ্রেফতার করা হলেও তার মা’কে এখনো গ্রেফতার করা হয়নি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button