অর্থ-বাণিজ্য

ক্লিন এনার্জিতে প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাংলাদেশের জ্বালানি ব্যবস্থায় ক্লিন এনার্জি (পরিবেশবান্ধব জ্বালানি) সম্প্রসারণে সরকার প্রণোদনা দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

বিজ্ঞাপন

সোমবার ( ১৫ মার্চ) ‘কার্বনমুক্ত ভবিষ্যতের জন্য কাঠামোগত পরিবর্তন’ শীর্ষক ওয়েবিনারে প্যানেলিস্ট হিসেবে বক্তব্য দেওয়ার সময় তিনি এই কথা বলেন।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, সোলার হোম সিস্টেম প্রায় ৬ মিলিয়ন হয়েছে সরকারের বিশেষ প্রণোদনার কারণে। এছাড়া নবায়নযোগ্য উৎস থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়াতে বছরভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন পরিকল্পনা এবং সোলার রোডম্যাপ-২০৪১ প্রস্তুত করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, পাওয়ার সিস্টেম মাস্টারপ্ল্যান পর্যালোচনা করে গ্যাসভিত্তিক ও নাবায়নযোগ্য উৎস থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে ভারত থেকে ১১৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করা হচ্ছে। আগামীতে আরও করা হতে পারে। নেপাল ও ভূটান থেকেও জলবিদ্যুৎ আমদানির বিষয়টি অনেকটা এগিয়ে রয়েছে। পরিকল্পনায় আমদানি করা বিদ্যুৎ বিশেষ অবদান রাখবে।

তিনি আরও বলেন, ২৪০০ মেগাওয়াট-এর নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্ট স্থাপিত হয়েছে। বিমসটেক, সাসেক, ডি-৮, সার্ক প্রভৃতি আঞ্চলিক, উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতা ফোরামের মাধ্যমে আঞ্চলিক গ্রিড নির্মাণের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বাণিজ্য প্রসারে বাংলাদেশ কাজ করে যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

মন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যকে গুরুতে দিয়ে বাংলাদেশের জ্বালানিখাতের পরিকল্পনা ও কৌশল গ্রহণ করে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এসময় তিনি রূপকল্প-৪১ বাস্তবায়ন করে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ রুপান্তরের কার্যক্রমে উন্নত দেশগুলোকে প্রযুক্তি ও অভিজ্ঞতা দিয়ে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানান।

জার্মানির উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা জিআইজেড এর তহবিল কর্মসূচি বিভাগের প্রধান সান্দ্রা রেযারের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন চিলির জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের স্টেট সেক্রেটারি ফ্রানসিস্কো জাভিয়ার, ইউক্রেনের আঞ্চলিক উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী ইভান লিউকেরিয়া , জার্মানির ফেডারেল অর্থনৈতিক বিষয়ক ও জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের উপ-মহাপরিচালক আলরিচ বেন্টারবোচ ও ভারতের বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বিবেক কুমার দেবাঙ্গান।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/এসএসএ


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button