খেলা

পেলের প্রশংসায় ভাসা রোনালদো জানালেন এখনও গল্প বাকি

স্পোর্টস ডেস্ক

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর শেষটা যেন সবাই বেশ তাড়াতাড়িই দেখে ফেলেন। আর বারবার তাদের ভুল প্রমাণ করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন এই কিংবদন্তি। এই তো হঠাত গুঞ্জন জুভেন্টাস আর রোনালদোকে দলেই রাখতে চাইছে না। তাকে নাকি মাত্র ২৯ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে বিক্রি করে দিবে। পেছনের কারণ? উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে জুভেন্টাসের বিদায়ের দায়টা বর্তেছে রোনালদোর ঘাড়েই। তবে সব সমালোচনাকে বুড়ো আঙুল দেখানো যে রোনালদোর নিত্য দিনের কাজ। সেটাই আরও একবার করে দেখালেন পর্তুগিজ এই কিংবদন্তি।

বিজ্ঞাপন

এর আগে শেষ হ্যাটট্রিকের দেখা পেয়েছিলেন ২০২০ সালের ৬ জানুয়ারির পর এই প্রথম হ্যাটট্রিকের দেখা পেলেন রোনালদো। এই নিয়ে ঘরোয়া লিগে রোনালদোর হ্যাটট্রিক সংখ্যা দাঁড়াল ৩৭টিতে, ক্লাব ক্যারিয়ারের এই হ্যাটট্রিক সংখ্যা ৪৮টি আর জাতীয় দল ও ক্লাব ক্যারিয়ার মিলিয়ে নিজের ৫৭তম হ্যাটট্রিক এদিন পূর্ণ করলেন রোনালদো।

কাগলিয়ারির মাঠে ম্যাচের ১০ মিনিটের মাথায় ডান দিক থেকে হুয়ান কুয়াদরাদোর দারুণ কর্নারে লাফিয়ে জোরালো হেডে বল জালে জড়ান ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। এরপর ডি বক্সের ভেতর ডি বক্সের ভেতর রোনলদোকে ফাউল করায় রেফারি জুভেন্টাসকে পেনাল্টি উপহার দেন। ম্যাচের ২৫তম মিনিটে স্পট কিক থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এই পর্তুগিজ যুবরাজ।

বিজ্ঞাপন

পেলের প্রশংসায় ভাসা রোনালদো জানালেন এখনও গল্প বাকি

১৩ মাস অপেক্ষায় রাখার পর আর বেশি সময় অপেক্ষা করাননি ভক্ত সমর্থকদের। জোড়া গোল পূর্ণ করার মাত্র ৭ মিনিটের মাথায় দুর্দান্ত এক গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন রোনালদো। প্রতি আক্রমণে বাঁ দিক থেকে ফেদেরিকো চিয়েসার পাস পেয়ে কোনাকুনি শটে বল জালে জড়ান তিনি, আর তাতেই পূর্ণ ক্যারিয়ারের ৫৭তম হ্যাটট্রিক। ২০২০/২১ সিরি আ’র মৌসুমে এখন পর্যন্ত রোনালদোর গোল সংখ্যা ২৩টি। আর তিনি এবারের আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতা।

বিজ্ঞাপন

সমালোচনার জবাবটা দিলেন হ্যাটট্রিকে আর তাতেই ছাড়িয়ে গেলেন কিংবদন্তি পেলেকে। ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি পেলেকে ছাড়িয়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলস্কোরার হয়েছেন রোনালদো। আনুষ্ঠানিকভাবে পেলের স্বীকৃত গোলসংখ্যা ৭৫৭টি। যা আরও বেশ কয়েকদিন আগেই ছাড়িয়ে গেছেন রোনালদো। তবে রোনালদো অপেক্ষায় ছিলেন ৭৬৭ গোল পেরুনোর।

সাও পাওলো স্টেট দল এবং ব্রাজিলিয়ান মিলিটারি দলের হয়ে পেলে করেছিলেন আরও দশটি গোল। এই দশ গোলসহ মোট ৭৬৭ গোলের হিসেব করেছেন রোনালদো। যা ছাড়িয়ে গেছেন রোববার রাতে। এখন স্বীকৃত ফুটবলে রোনালদোর গোলসংখ্যা ৭৭০টি।

বিজ্ঞাপন

রোনালদোর কীর্তির পরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দুজনের এবটি ছবি দিয়ে আবেগঘন শুভেচ্ছা জানান পেলে।

পেলের প্রশংসায় ভাসা রোনালদো জানালেন এখনও গল্প বাকি ‘জীবন একটি একক যাত্রা। প্রত্যেকেই বেছে নেয় নিজের পথ। কী একটা দুর্দান্ত ভ্রমণেই না তুমি ছুটে চলেছো! আমি তোমাকে প্রচণ্ড শ্রদ্ধা করা, তোমাকে খেলতে দেখতে ভালোবাসি এবং কারও কাছেই এটা গোপন নয়। অফিসিয়াল ম্যাচে আমার গোলের রেকর্ড ভাঙায় অভিনন্দন। আমার একমাত্র আক্ষেপ, আজকে তোমাকে জড়িয়ে ধরতে না পারায়। তবে তোমার সম্মানে, আমাদের বহু বছরের বন্ধুত্বের প্রতীক হিসেবে দারুণ মমত্ব নিয়ে এই ছবিটি আমি দিচ্ছি।’

বিজ্ঞাপন

এদিকে পেলের রেকর্ড ছাড়িয়ে রোনালদোও পেলের সঙ্গে নিজের একটি ছবি দিয়ে জানিয়েছেন নিজের কথাটিও। যেখানে তিনি পেলের রেকর্ড ভাঙায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। আর সবাইকে জানান দিয়েছেন রোনালদোর এখনও ফুরিয়ে যায়নি। এখনও নিজের গল্পের অনেক পথ বাকি বলে মনে করেন রোনালদো। তাই আসন্ন যাত্রায় সবাইকে সঙ্গী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

‘গত কয়েক সপ্তাহ খবর এবং পরিসংখ্যানে আমাকে ফুটবল ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোলস্কোরার হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। যেখানে বলা হয়, আমি পেলের করা ৭৫৭ গোলের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছি। আমি এই খেতাবের জন্য কৃতজ্ঞ। তবে আমি এখন পরিষ্কার করব, কেন এতদিন এই রেকর্ড নিজে উদযাপন করিনি।

আমার অনেক ভালোবাসা ও প্রশংসা মিস্টার এডসন আরান্তেস দস নসিমেন্তর (পেলে) জন্য। একইরকম সম্মান আছে বিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি সময়ের ফুটবলের জন্য। যা আমাকে নিজের গোলসংখ্যাকে ৭৬৭ পর্যন্ত যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করিয়েছে। সাও পাওলো স্টেট দলের হয়ে ৯ এবং ব্রাজিলিয়ান মিলিটারি দলের হয়ে ১টি গোল রয়েছে পেলের। বিশ্ব এরপর বদলে গেছে মানে এই না যে আমরা নিজেদের ইচ্ছামতো ইতিহাস মুছে দেবো।

পেলের প্রশংসায় ভাসা রোনালদো জানালেন এখনও গল্প বাকি

আজকে আমি আমার পেশাদার ক্যারিয়ারের ৭৭০তম স্বীকৃত গোল করেছি। সবার আগে আমি পেলেকেই স্মরণ করছি। বিশ্বের এমন কোনো খেলোয়াড় নেই যারা বড় হতে পেলের কথা শোনেনি, তার রেকর্ডের ব্যাপারে জানেনি। আমিও এর ব্যতিক্রম নই। আর এ কারণেই আমি তার রেকর্ড ভাঙতে পেরে অনেক বেশি গর্বিত। মাদেইরাতে বালক বয়সে আমি এমনটা হয়তো স্বপ্নেও ভাবতে পারতাম না।

তাদের সবাইকে ধন্যবাদ, যারা আমার সঙ্গে এই অসাধারণ যাত্রায় সঙ্গী ছিলেন। আমার সতীর্থ, প্রতিপক্ষ, সারা বিশ্বে এই সুন্দর খেলাটির সমর্থক এবং সর্বোপরি আমার পরিবার ও কাছের বন্ধুরা; বিশ্বাস করুন, আমি যে এখন এটা বলছি, আপনারা না থাকলে এটা একদমই সম্ভব হতো না।

এখন পরবর্তী ম্যাচ এবং চ্যালেঞ্জের জন্য অপেক্ষার তর সইছে না আমার। পরবর্তী রেকর্ড এবং ট্রফি! বিশ্বাস করুন, এই গল্পটা শেষ হতে এখনও অনেক বাকি। আগামীকাল মানেই ভবিষ্যত এবং জুভেন্টাস ও পর্তুগালের হয়ে অনেক কিছুই জেতা বাকি। আমার এ যাত্রায় সঙ্গী হোন। চলুন।’

সারাবাংলা/এসএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button