জাতীয়

বিদেশি মুদ্রার রিজার্ভ দিয়ে অবকাঠামো উন্নয়ন তহবিলের যাত্রা শুরু

সারাবাংলা ডেস্ক

বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়নের জন্য প্রথমবারের মতো দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ থেকে একটি তহবিল গঠন করেছে সরকার। এই তহবিলের মাধ্যমে যেকোনো ধরনের উন্নয়ন প্রকল্পে বিনিয়োগ করতে পারবে বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘বাংলাদেশ অবকাঠামো উন্নয়ন তহবিল (বিআইডিএফ)’ নামের এই তহবিলটি উদ্বোধন করেছেন। তহবিলটি থেকে পায়রা বন্দরকে ঋণ দেওয়ার জন্য একটি চুক্তিও এরই মধ্যে সই হয়েছে।

সোমবার (১৫ মার্চ) সকালে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে সচিবালয়ের অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগে অনুষ্ঠিত এই চুক্তি সই অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে বিআইডিএফ থেকে পায়রা বন্দরের রামনাবাদ চ্যানেলের ক্যাপিটাল ও মেইনটেন্যান্স ড্রেজিং শীর্ষক স্কিমে অর্থায়নের লক্ষ্যে অর্থ বিভাগ, পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষ ও সোনালী ব্যাংকের মধ্যে ত্রিপাক্ষিক ঋণচুক্তি সই হয়।

বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে সরকার প্রধান শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পেতে জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসির (সিডিপি) চূড়ান্ত সুপারিশ পেয়েছে। মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে নিজেদের নিজের পায়ে চলতে হবে। এ জন্য অন্যের কাছে হাত না পেতে নিজেরা উন্নয়ন প্রকল্পে অর্থায়ন করব। দেশি-বিদেশি যারাই বিনিয়োগ করতে আসুক, আমরা নিজেরা অর্থায়ন করব। বাংলাদেশ অবকাঠামো উন্নয়ন তহবিল থেকে প্রাথমিক অর্থায়ন করা হবে।

অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বক্তৃতা করেন। গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, পায়রা বন্দরের ওপর নির্মিত একটি ভিডিও ডক্যুমেন্টারি উপস্থাপন করা হয়। পাশাপাশি দেশের সামষ্টিক অর্থনীতির বর্তমান অবস্থা নিয়ে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন দেন অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আবদুর রউফ তালুকদার।

বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ থেকে এই তহবিল গঠনের প্রসঙ্গ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগের চিন্তা হলো স্বাবলম্বী হয়ে আত্মমর্যাদা নিয়ে চলা। গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত মানুষকে স্বাবলম্বী করে গড়ে তোলা। উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে আমাদের নিজের পায়ে চলতে হবে। নিজেদের অর্থায়নে কাজ করতে হবে। সেজন্য বাংলাদেশ অবকাঠামো উন্নয়ন তহবিল গঠন করলাম।

বিজ্ঞাপন

শেখ হাসিনা বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে আমাদের জীবনযাত্রা স্থবির হয়ে পড়ে। এ সময় আমরা অনেককে হারিয়েছি। সঙ্গে সঙ্গে এই করোনায় আমরা আরেকটি বিষয় দেখতে পাচ্ছি— আমাদের রেমিট্যান্স বেড়েছে, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বেড়েছে। এই রিজার্ভের টাকা কিভাবে উন্নয়নে ব্যয় করতে পারি, সেটাই চিন্তা করেছি। বার বার অন্যের কাছে হাত না পেতে নিজেদের অর্থ দিয়ে আমরা নিজেদের অবকাঠোমো উন্নয়ন করব। যারা বিনিয়োগ করতে আসবে, এই অর্থ থেকে আমরা তাদের ঋণও দিতে পারি। তাতে দেশেরও লাভ, আমাদেরও আত্মবিশ্বাস জন্মাবে। আমরা যে পারি, বিশ্বের কাছে তা দেখাতে পারব।

তিনি আরও বলেন, আজ আমাদের অত্যন্ত আনন্দের দিন। উন্নয়নের ক্ষেত্রে নিজেদের অর্থায়নের সুযোগ তৈরি করতে পারলাম। রামনাবাদ চ্যানেলের ক্যাপিটাল ও মেইনটেন্যান্স ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের জীবনে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। এর মাধ্যমে আমাদের উন্নয়নের ছোঁয়া সারাদেশে পড়বে। বাসস।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/টিআর


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button