জাতীয়

শ্রমঘন পাটখাতের উন্নয়নই দেশের আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি: পাটমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: শ্রমঘন পাটখাতের উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের আর্থ-সামাজিক অগ্রগতির ধারা বেগবান রাখতে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, বীরপ্রতীক।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার ( ১৬ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর আমিনবাজারে ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির সূচক ‘পাট ও বস্ত্র খাতের উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে দিনব্যাপী কর্মশালায় মন্ত্রী এ কথা বলেন।

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী বলেন, পাটের হারানো গৌরব ও ঐতিহ্য আবার ফিরে এসেছে। পাটের নিত্যনতুন বহুমুখী পণ্য আবিষ্কার হচ্ছে। আগের সেই পুরনো গতানুগতিক পাটের পণ্য এখন আর নেই। পাটের তৈরি বিভিন্ন নতুন পণ্য নিয়ে পাটপণ্য এখন নতুন অঙ্গনে চলে গেছে।

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন, পাটশিল্পের পুনরুজ্জীবন ও আধুনিকায়নের ধারা বেগবান করতে পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন-২০১০, পাট আইন-২০১৭, জাতীয় পাটনীতি-২০১৮ প্রণয়ন করেছে। এ সকল আইন ও নীতিমালা বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশের অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক বাজারে পাট ও পাটজাত পণ্যের চাহিদা ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে।

এসময় বস্ত্র ও পাট সচিব লোকমান হোসেন মিয়া,জেডিপিসি’র নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ আবুল কালাম (অতিরিক্ত সচিব), অতিরিক্ত সচিব সাবিনা ইয়াসমিনসহ বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসজে/এসএসএ


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button