সারাদেশ

ঠুনকো অভিযোগে বরখাস্ত করে নতুন নিয়োগে অর্থ আত্মসাতের পাঁয়তারা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

কুড়িগ্রাম: জেলার উলিপুর উপজেলার বুড়াবুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আইয়ুব আলী বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এসএসসি’র ফরমপূরণে অতিরিক্ত অর্থ আদায়, ঠুনকো অভিযোগে কর্মচারী ছাঁটাইসহ কমিটির সভাপতির যোগসাজশে নিয়োগের নামে অর্থ নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও শিক্ষক ও কর্মচারীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

একদিন বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকার কারণে এমএলএসএস (নৈশপ্রহরী) মো. আলম হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করেন প্রধান শিক্ষক। বিদ্যালয়ের কমিটি এখন নৈশপ্রহরী পদে নুতন করে নিয়োগ দিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা করছে। এ ঘটনায় জেলা শিক্ষা অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন আলম হোসেন।

ওই অভিযোগে থেকে জানা গেছে, পারিবারিক সমস্যার কারণে ২০১৯ সালের ২৫ মার্চ বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকতে পারেননি এমএলএসএস (নৈশপ্রহরী) মো. আলম হোসেন। পরে অনুপস্থিত থাকার কারণ দর্শানোর নোটিশের উত্তর প্রদানে ব্যর্থতার অজুহাতে ওই বছরের ২৭ নভেম্বর তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। পরে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সুপারিশে ব্যবস্থপনা কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক বিধি মোতাবেক তাকে পুনঃনিয়োগের আশ্বাস প্রদান করেন। ইতিমধ্যে ম্যানেজিং কমিটির মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় প্রধান শিক্ষক তার পছন্দের লোকজন নিয়ে অ্যাডহক কমিটি গঠন করেন। ওই কমিটি এখন নৈশপ্রহরী পদে নুতন করে নিয়োগ দিয়ে ছয় থেকে সাত লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার পায়তারা করছেন। এদিকে দীর্ঘদিন ধরে বেতন-ভাতা বন্ধ থাকায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন ওই নৈশপ্রহরী।

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও গত দুই দিন আগে বুড়াবুড়ী হাই স্কুলের ৪০ হাজার ইটসহ ঘর, ১৫টি স্টিলের দরজা জানালা, দুটি ঢালাই ওয়াশব্লকের কেচি গেট, বেসিন, ১৫বাইন টিন, প্রায় ১০ মন রড মাত্র ৩৯ হাজার ৫শ টাকায় বিক্রি করেন প্রধান শিক্ষক। যার আনুমানিক বাজার মূল্য কম পক্ষে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা থেকে ৩ লাখ টাকা। বিধিনিষেধের তোয়াক্কা না করে গুটিকয়েক ব্যক্তির যোগসাজশে এই কাজ হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

এ সব অভিযোগ অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষক আইয়ুব বলেন, বিধিমালা মেনেই নৈশপ্রহরী আলম হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। আর অন্যান্য অনিয়মের বিষয়ে তিনি বলেন, সবকিছুই সঠিক নিয়মে হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

তবে অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে কুড়িগ্রাম জেলা শিক্ষা অফিসার মো. শামসুল আলম জানান, বিষয়টির সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সারাবাংলা/এনএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button