খেলা

তবুও শান্তর কাঁধে অধিনায়কের হাত

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে প্রত্যাশা অনেক। তরুণ ব্যাটসম্যানকে তৈরি করে তুলতে কতো কিছু্ই করছে বোর্ড। প্রতিভা আছে বলেই তাকে নিয়ে এতো চেষ্টা। কিন্তু কেন জানি প্রতিভার প্রয়োগ দেখাতে পারছেন না তরুণ ব্যাটসম্যান। অভিজ্ঞ করে তুলতে ম্যাচের পর ম্যাচ খেলানো হচ্ছে, কিন্তু শান্ত বারবারই ব্যর্থ!

বিজ্ঞাপন

জাতীয় দলের হয়ে সব মিলিয়ে ম্যাচ খেলেছেন ১৬টি। টেস্ট ৬টি, ওয়ানডে ৮টি আর টি-টোয়েন্টি ২টি- কোনো সংস্করণেই সাফল্য পাননি বাঁহাতি ক্রিকেটার। টেস্টে তার গড় ২১.৯০। ওয়ানডের কোনো ইনিংসই ৩০ এর ঘরে নিতে পারেননি, গড় ১১.৬২। টি-টোয়েন্টির অবস্থা আরও করুণ, দুই ম্যাচে রান করেছেন ১৬।

সাকিব আল হাসান বিশ্বকাপে তিন নম্বরে ব্যাটিং করে বিশ্বমাত করেছেন। তবুও সদ্য সমাপ্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে সাকিবকে চারে পাঠিয়ে তিনে খেলানো হয়েছে শান্তকে। এ নিয়ে কম কথা উঠেনি। শান্ত সফলও হতে পারেননি, তিন ওয়ানডে ম্যাচ মিলিয়ে রান করেছেন ৩৮। পরে টেস্ট সিরিজেও ব্যর্থ শান্ত। দুই টেস্টে চার ইনিংস ব্যাটিং করে মোট রান করেছেন ৪০। তবুও শান্তর ওপর আস্থা রাখছে টিম ম্যানেজমেন্ট। ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালকে পাশেই পাচ্ছেন তিনি। সাফল্য না পেলেও শান্তকে লম্বা রেসের ঘোড়া বলেছেন তামিম।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (২০ মার্চ) নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটি খেলতে নামবে বাংলাদেশ। আজ ভার্চুয়ালি সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন তামিম। শান্ত প্রসঙ্গ উঠতে বলেছেন, ‘শান্ত তিনে খেলছিল, আগেও খেলছিল। সাকিব এক-দেড় বছর পর আসাতে টিম ম্যানেজমেন্ট ওর সঙ্গে কথা বলে দেখেছে যে, ওরা (সাকিব-মুশফিকের মতো অভিজ্ঞরা) যদি চার-পাঁচ-ছয়ে খেলে, দলের জন্য ভালো হবে। হ্যাঁ, এটা বলতে পারেন, শান্তর কাছ থেকে যেরকম আশা ছিল, সেরকম করতে পারেনি। তবে তিনটি ম্যাচ হয়েছে। আমি নিশ্চিত, ওর অনেক লম্বা ভবিষ্যৎ আছে।’

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএইচএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button