আন্তর্জাতিক

নন্দীগ্রামের প্রচারণায় তারকা উপস্থিতি চাইছেন মমতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে নন্দীগ্রামের প্রচারণায় ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ১৭ রোড শোয়ের বিপরীতে তৃণমূল চায় ১৭টি পাল্টা প্রচার। এক দিকে যেমন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি, অন্য দিকে তেমনই তার প্রাক্তন সহকর্মী শুভেন্দু অধিকারি। ভোটের ময়দানে দুই জনেই ‘হেভিওয়েট’। তাই দুই জনেই প্রচারে জোর দিচ্ছেন। শুভেন্দু যেখানে রাজনীতির ওপর বেশি ভরসা করছেন, মমতা তেমনই জোর দিচ্ছেন তারকাদের উপস্থিতির ওপর। খবর আনন্দবাজার পত্রিকা।

বিজ্ঞাপন

নন্দীগ্রামে দুই ব্লকের ১৭ গ্রাম পঞ্চায়েত। শুভেন্দু পরিকল্পনা করেছেন, বিজেপির হেভিওয়েট নেতাদের নিয়ে ওই ১৭ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় ১৭টি রোড শো করবেন। কারণ, তারা মনে করছেন, জনসংযোগের মাধ্যম হিসেবে রোড শো অনেক বেশি লাভজনক। বিশেষত, তার মূল প্রতিদ্বন্দ্বী মুখ্যমন্ত্রী মমতা যখন পায়ে চোট পেয়ে হুইলচেয়ারে বন্দি। ওই অবস্থায় তার পক্ষে রোড শো করা সম্ভব হবে না বলেই মনে করেন বিজেপি নেতারা।

তবে এর মধ্যেই মমতা ব্যানার্জিকে একদিন হুইল চেয়ারে বসে মিছিলের নেতৃত্ব দিতে দেখা গেছে। ফলে প্রয়োজনবোধে নন্দীগ্রামেও হুইল চেয়ারে মিছিল করতে পারেন তিনি। কিন্তু আপাতত তৃণমূলের ক্যাম্পেইন দল ঠিক করেছে, শুভেন্দুর ওই ১৭ রোড শোয়ের জবাবে ১৭ গ্রাম পঞ্চায়েত অঞ্চলে ১৭ জন তারকাকে নিয়ে যাবে তারা।

বিজ্ঞাপন

এমনিতেই তৃণমূলে তারকার অভাব নেই। বিজেপি এই বিধানসভা নির্বাচনের আগে নতুন করে তারকাদের দলে ভিড়ালেও নিলেও মমতা সে বিষয়ে তাদের থেকে অনেকটাই এগিয়ে। এখনও তৃণমূলে রয়েছেন তিন তারকা সাংসদ — দেব, মিমি চক্রবর্তী এবং নুসরাত জাহান। তাদের পাশাপাশি রয়েছেন অভিনেত্রী-সাংসদ শতাব্দী রায়। যিনি দেব-মিমি-নুসরাতের আগেই রাজনীতিতে এসেছিলেন।

তাছাড়াও এবার তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় রয়েছেন সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, কৌশানী মুখোপাধ্যায়, জুন মালিয়া, কাঞ্চন মল্লিক, রাজ চক্রবর্তীরা। এরা যদি সেলুলয়েডের তারকা হন, তা হলে মমতার দলে রয়েছেন টেলিভিশনের অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও। তাদেরকেও আনা হবে মুখ্যমন্ত্রীর প্রচারে। মমতা নন্দীগ্রামে আনতে চান লাভলি মৈত্র, রণিতা দাস, শ্রীতমা মুখোপাধ্যায়, অদিতি মুন্সির মতো টেলিভিশনের অতিপরিচিত মুখদেরকেও।

বিজ্ঞাপন

এদের মধ্যে টালিগঞ্জের জনপ্রিয় অভিনেতা দেব ইতোমধ্যেই নন্দীগ্রামে একদফা প্রচার করে গিয়েছেন। প্রয়োজনে পরেও তিনি নন্দীগ্রাম যেতে পারেন। বাকিরাও ‘দিদির জন্য’ প্রচারে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত বলে তৃণমূল সূত্রে জানিয়েছে কলকাতা থেকে প্রকাশিত আনন্দবাজার পত্রিকা।

সারাবাংলা/একেএম


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button