জাতীয়

বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীতে ঢাকা এখন আলোর নগরী

এমদাদুল হক তুহিন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকীতে রঙিন আলোতে সেজেছে পুরো দেশ। রাতের ঢাকা এখন রূপ নিয়েছে আলোর নগরীতে। এ যেন সত্যিকারের রঙিন ঢাকা, বঙ্গবন্ধুর আলোয় উদ্ভাসিত ঢাকা!

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১৭ মার্চ) রাজধানী ঘুরে দেখা যায়, শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, অভিজাত হোটেল ও গুরুত্বপূর্ণ সড়ক এখন আলোতে উজ্জ্বল। বিমানবন্দর থেকে ফার্মগেট, ফার্মগেট থেকে হাইকোর্ট, জাতীয় সংসদ, গণভবন, বঙ্গভবন, হাতিরঝিল— সব এলাকা এখন আলোতে রঙিন। এছাড়া বাহারি ব্যানার, পোস্টার, বঙ্গবন্ধুর বক্তৃতা সম্বলতি প্ল্যাকার্ড, রাস্তার মোড়ে মোড়ে ফুলের টব— সব মিলিয়ে রঙিন সময়ে ফুলে ফুলে সজ্জিত ঢাকা। প্রাণের ঢাকায় এখন যেন সবখানে বঙ্গবন্ধুর ছোঁয়া।

গেল কয়েকদিন ধরেই বাহারি রঙের আলোর ঝলকানিতে সেজে উঠছিল ঢাকা। বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীতে তা পূর্ণতা পায়। মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) শহরের গুরুত্বপূর্ণ প্রতিটি ভবনকে রঙিন দেখা গেছে। শহরের মোড়ে মোড়ে গুরুত্বপর্ণ স্থাপনায় দেখা গেছে আলোর ঝলকানি। রাতে জাতীয় সংসদ ভবন লেজার আলোতে রঙিন রূপ ধারণ করে। আতশবাজিতে রঙিন হয়ে ওঠে ঢাকার আকাশ। হাতিরঝিলের রঙিন আকাশ মহাখালী কিংবা গুলশানের বাসিন্দারা তাদের বাসা থেকেও দেখতে পেয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীতে ঢাকা এখন আলোর নগরী

বুধবার সন্ধ্যার পর থেকেই আবারও আলোকজ্জ্বল হতে থাকে ঢাকা। বিকেলে জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানমালার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। রাতে গুরুত্বপূর্ণ ভবন ও সড়কে জ্বলে উঠে ঝাড়বাতি। রাস্তা দিয়ে পথ চলাচলের সময় যেকোনো পথচারীর মনে হবে, এ যেন উৎসবের নগরী।

বিজ্ঞাপন

রাতের রাস্তা অনেকটাই ফাঁকা। মোড়ে মোড়ে পুলিশের বাড়তি টহল। চলার পথে এরই মাঝে বিভিন্ন স্থান থেকে ভেসে আসছে বঙ্গবন্ধুর বজ্রকণ্ঠ। সবমিলিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীতে রাতের ঢাকায় এখন অন্য রকমের এক উৎসবের আমেজ।

সন্ধ্যায় হাতিরঝিলে কথা হয় ফার্মগেটের বাসিন্দা সজীবের সঙ্গে। তিন বন্ধু মিলে আড্ডা দিচ্ছিলেন। সারাবাংলাকে সজীব বলেন, বাসা থেকে বের হতেই মনে হয়েছে আজ এক উৎসব। বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে যেভাবে সেজেছে পুরো শহর, তা দেখে সত্যিই ভালো লাগছে। রঙিন এই শহর অন্যদিনের চেয়ে অনেক ভালো লাগছে।

বিজ্ঞাপন

বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীতে ঢাকা এখন আলোর নগরী

সংসদ ভবনের সামনে কথা হয় মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা আব্দুল্লাহ কাফির সঙ্গে। সারাবাংলাকে তিনি বলেন, পুরো ঢাকা রঙে রঙিন হয়ে গেছে। এটি যে ঢাকা শহর তা বুঝার উপায় নেই। বাংলাদেশ মানেই বঙ্গবন্ধু। বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন এভাবেই পালন করা উচিত। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত এর আগে কখনো এভাবে জন্মদিন পালন হয়নি, প্রতিবছরই এভাবে জাতির পিতার জন্মদিন পালন করা উচিত।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া দিনের ঢাকাও এখন বর্ণিল সাজে সজ্জিত। ১০ দিনের গুরুত্বপূর্ণ এই অনুষ্ঠানকে স্মরণীয় ও বরণীয় করে রাখতে ঢাকা সেজেছে এক অপরূপ দৃষ্টিনন্দন শৈলীতে।  প্রধান প্রধান সড়কের মাঝখানে লাগানো হয়েছে ফুলের টব। পাশেই সজ্জিত মনোরম প্ল্যাকার্ড, ফেস্টুন ও ব্যানার। আছে ইতিহাস ঐতিহ্যের নানাবিধ নিদর্শন। বাদ যায়নি রাস্তার মোড়, ল্যাম্পপোস্টও। আর ব্যতিক্রমী এই ঢাকার রাতের দৃশ্য দেখতে মধ্যরাতেও এসেছেন অনেকে। নগরবাসী বেশ উপভোগ করছেন এমন দৃশ্য। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর এমন আয়োজন দেখতে পেয়ে অনেকেই জানিয়েছেন তাদের সন্তুষ্টির কথা।

ছবি: সুমিত আহমেদ

সারাবাংলা/ইএইচটি/টিআর


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button