সারাদেশ

শাল্লায় গ্রামবাসীর মামলায় আসামি ৮০, পুলিশের মামলায় সবাই অজ্ঞাত

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

সুনামগঞ্জ: জেলার শাল্লার সংখ্যালঘু গ্রাম নোয়াগাঁওয়ে হামলা লুটপাট ও ভাঙচুরের ঘটনায় দু’টি পৃথক মামলা হয়েছে। এক মামলার বাদী শাল্লা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল করিম। অন্য মামলার বাদী স্থানীয় হবিবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নোয়াগাঁও গ্রামের বাসিন্দা বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, গ্রামবাসীর পক্ষে দায়ের করা মামলার বাদী হয়েছেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গ্রামের বাসিন্দা বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল। এই মামলায় ৮০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

শাল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল হক জানান, পুলিশ বাদী হয়ে দায়ের করা মামলার বাদী এসআই আব্দুল করিম। এই মামলায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করা হয়েছে এবং গ্রামবাসীর পক্ষে আরেকটি মামলায় আসামি করা হয়েছে ৮০ জনকে।

বিজ্ঞাপন

মামুনুলের সমর্থকদের বিরুদ্ধে মন্দিরসহ বাড়িঘর ভাঙচুরের অভিযোগ

উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় হেফাজত ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব আল্লামা মামুনুল হকের সমর্থকরা বুধবার হামলা, লুটপাট ও ভাঙচুর করে হিন্দু অধ্যুষিত নোয়াগাঁও গ্রামের ৮৮টি বাড়িতে। এসময় গ্রামের ৫টি মন্দির ভাঙচুর করা হয়। নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাস আপন নামের এক তরুণের ফেসবুক আইডি থেকে মাওলানা মামনুল হককে কটাক্ষ করে কথিত স্ট্যাটাসের কারণে এই সব ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমও


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button