অর্থ-বাণিজ্য

১৭ হাজার মেট্রিক টন ভাঙা চাল আমদানির অনুমতি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাজারে চালের দাম স্থিতিশিল রাখার পাশাপাশি মজুত বাড়াতে আরও ১৭ হাজার মেট্রিক টন ভাঙা চাল আমদানির অনুমতি দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। ১৩টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে এই চাল আমদানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১৭ মার্চ) খাদ্য মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত একটি চিঠি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে।

চিঠিতে ২৮ মার্চের মধ্যে এলসি খোলার শর্ত দেওয়া হয়েছে। এলসি খোলা সংক্রান্ত তথ্য খাদ্য মন্ত্রণালয়কে তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে বলা হয়েছে। বরাদ্দ পাওয়া আমদানিকারককে এলসি খোলার ১৫ দিনের মধ্যে ৫০ ভাগ এবং পরের পনের দিনের মধ্যে সম্পূর্ণ পরিমাণ চাল বাজারজাত করতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া বরাদ্দে অতিরিক্ত আইপি ( ইমপোর্ট পারমিট) জারি বা ইস্যু করতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। আমদানি করা চাল স্বত্তাধিকারী প্রতিষ্ঠানের নামে পুনঃপ্যাকেটজাত করে বাজারজাত করা যাবে না।প্লাস্টিকের বস্তায় আমদানি করা চাল বিক্রি করতে হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এলসি খুলতে না পারলে বরাদ্দ আদেশ বাতিল করা হবে।

উল্লেখ্য, এর আগেও খাদ্য মন্ত্রণালয় বিভিন্ন শর্তে বেসরকারি পর্যায়ে মোট ১০ লাখ সাড়ে ১৪ হাজার মেট্রিক টন চাল আমদানির অনুমতি দেয়। ৩২০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান সিদ্ধ চাল আমদানির অনুমতি পেলেও বেশিরভাগ চাল এখনো বাজারে পৌঁছায়নি। এরমধ্যে যারা ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এলসি খুলতে পারেনি তাদের বরাদ্দ বাতিল করা হয়। আর যারা যথাসময়ে এলসি (ঋণপত্র) খুলতে পেরেছেন তাদেরকে আগামী ২৫ মার্চের মধ্যে চাল আমদানির সময় বেধে দেয় খাদ্য মন্ত্রণালয়। এখন নতুন করে আবার আমদানির জন্য বরাদ্দ দিচ্ছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/এসএসএ


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button