জাতীয়

শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী আসছেন সকালে: তালিকায় ৫টি সমাঝোতা স্মারক

এমএকে জিলানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে ১০ দিনের বিশেষ অনুষ্ঠানমালার আয়োজন চলছে। এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে দুই দিনের সফরে ঢাকা আসছেন শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে। সফরে বাংলাদেশ ও শ্রীলংকার মধ্যে পাঁচটি সমঝোতা স্মারক সই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১৭ মার্চ) রাজধানীর জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে শুরু হয়েছে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও সুবর্ণজয়ন্তীর ১০ দিনের অনুষ্ঠান। এর তৃতীয় দিনের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে শুক্রবার (১৯ মার্চ) সকালে ঢাকা পৌঁছাবেন মাহিন্দা রাজাপাকসে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, শ্রীলংকার শিক্ষামন্ত্রী, আঞ্চলিক সহযোগিতা বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী, তাত ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী, গ্রামীণ গৃহায়ন ও গৃহ নির্মাণ সামগ্রী শিল্প বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী, অর্থ প্রতিমন্ত্রী এবং সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাসহ ২৮ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে’র এই সফরে সঙ্গী হিসেবে থাকছেন।

বিজ্ঞাপন

শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে’র সফরসূচি থেকে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুক্রবার (১৯ মার্চ) সকালে বিমানবন্দরে তাকে সাদর অভ্যর্থনা জানাবেন। এসময় শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রীর সম্মানে ২১টি গান স্যালুটসহ আনুষ্ঠানিক গার্ড অব অনার দেওয়া হবে।

বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে মাহিন্দা রাজাপাকসে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহিদদের স্মরণে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। বিকেলে তিনি জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে বিশেষ অনুষ্ঠানমালায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। সন্ধ্যায় তার সম্মানে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নৈশভোজে অংশ নেবেন।

বিজ্ঞাপন

পরদিন শনিবার (২০ মার্চ) মাহিন্দা রাজাপাকসে ধানমন্ডির বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করবেন এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন।

সফরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসেবে ওই দিনই দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী পর্যায়ে আনুষ্ঠানিক দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হবে। বৈঠকে দুই দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। এসব বিষয়ের মধ্যে বাণিজ্য, বিনিয়োগ, কৃষি, উপকূলীয় জাহাজ চলাচল, শিক্ষা ও তথ্যপ্রযুক্তির মতো বিষয়ে পারস্পরিক সহযোগিতা বেশি গুরুত্ব পাবে।

বিজ্ঞাপন

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, দুই দেশের শীর্ষ পর্যায়ের বৈঠক শেষে কমবেশি পাঁচটি বিষয়ে সমাঝোতা স্মারক সই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন সুনির্দিষ্টভাবে কোনো সংখ্যা বলেননি। তিনি বলেন, ‘বৈঠক শেষে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক সমঝোতা স্মারক সইয়ের কথা রয়েছে।’

শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক ও সমঝোতা স্মারক সইয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বিকেল ৫টায় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের কথা রয়েছে শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রীর। সাক্ষাৎ শেষে ওই দিন সন্ধ্যায় তিনি কলম্বোর উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে যাবেন।

বিজ্ঞাপন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে আগামী ১৯ ও ২০ মার্চ বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় সফর করবেন। সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আনুষ্ঠানিক দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে অংশ নেবেন।’

এর আগে, গত বুধবার জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর ১০ দিনের অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি ইব্রাহিম মোহামেদ সলিহ। তিনিও দুই দিনের সফরে ঢাকা এসেছিলেন। রাষ্ট্রীয় ওই অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া ছাড়াও আজ বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করেছেন মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি। পরে দুই দেশের মধ্যে চারটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। আজ গভীর রাতে মারদ্বীপের রাজধানীর মালের পথে রওনা হওয়ার কথা রয়েছে রাষ্ট্রপতি সলিহ’র।

সারাবাংলা/জেআইএল/টিআর


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button