খেলা

অথচ তাসকিনরা প্রস্তুতই ছিলেন

স্পোর্টস ডেস্ক

নিউজিল্যান্ডের উইকেটের সহজাত বাউন্সটা ছিলই। সঙ্গে কিউই পেসাররা গতির ঝড়ে সুইংয়ের পসরা সাজিয়ে বসেছিলেন। তার বিরুদ্ধে প্রথম ওয়ানডেতে আজ দাঁড়াতেই পারেননি বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা। ১৩১ রানেই গুটিয়ে যায় প্রথমে ব্যাটিং করতে নামা বাংলাদেশ। এই অল্প পুঁজি নিয়ে পরে স্বাভাবিকভাবেই প্রতিরোধ গড়তে পারেননি বাংলাদেশি বোলাররা। ম্যাচ শেষে পেসার তাসকিন আহমেদের কণ্ঠে ঝড়ল বাংলাদেশের অল্পতে গুটিয়ে যাওয়ার আক্ষেপ।

বিজ্ঞাপন

মাঠে নামার প্রায় মাসখানেক আগে নিউজিল্যান্ডে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। কোয়ারেন্টাইন শেষে বিপক্ষ কন্ডিশনে মানিয়ে নিতে কঠোর অনুশীলন করেছে তামিম ইকবালের দল। কিন্তু মাঠের লড়াইয়ে ব্যাটসম্যানরা পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন। তাসকিন বলছিলেন, সংগ্রহটা যদি আড়াইশ ছাড়াতো তাহলে তারা কিউইদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়তেন। ম্যাচের গল্পটা সেক্ষেত্রে অন্য রকমও হতে পারত বলছেন ডানহাতি পেসার।

ম্যাচ শেষে তাসকিন বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনকভাবে ব্যাটিংয়ের শুরুটা আমাদের ভালো হয়নি। যদি আমরা ২৬০-২৭০ রান করতাম, তাহলে গল্পটা অন্যরকম হতে পারত। আমরা ততটা ভালো ব্যাটিং করতে পারিনি। মাত্র ১৩১ রান (করতে পেরেছি)। এটা নিয়ে কিছু করার থাকে না আসলে। রান ২৬০-২৭০ হলে, আমরা (বোলাররা) আক্রমণাত্মক হতে পারতাম।’

বিজ্ঞাপন

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এখনো পর্যন্ত তাদের জিততে পারেনি বাংলাদেশ দল। এই সিরিজ শুরুর আগে ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল ও হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো বলছিলেন, এবার সেই অপূর্ণতা ঘোচাতে মরিয়া বাংলাদেশ। আর এই চেষ্টায় তরুণ পেস আক্রমণকে বড় ভরসা বলেছিলেন তামিম। কিন্তু বোলারদের লড়াই করার মতো পুঁজিই দিতে পারেননি ব্যাটসম্যানরা।

তবুও তাসকিন আহমেদ ও তরুণ স্পিনার শেখ মেহেদি হাসান দুর্দান্ত বোলিং করেছেন। তাসকিন বলেছেন, তারা প্রস্তুতই ছিলেন, ‘আমাদের বোলাররা ভালো প্রস্তুতি নিয়েছিল। আমরা এখানে আসার পর কোয়ারেন্টাইন শেষে ভালো প্রস্তুতি নিয়েছি। আমি আবারও বলছি, ২৬০-২৭০ হলে লড়াই করা যেত। ১৩০ বা এ ধরনের স্কোরে হারাটাই সহজ।’

বিজ্ঞাপন

এই সফরে তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। সে হিসেবে এখনো পাঁচ ম্যাচ বাকি। প্রথম ম্যাচের ব্যর্থতা ভুলে সেদিকে তাকাচ্ছেন তাসকিন, ‘আমরা ভালো কিছুর প্রত্যাশায় আছি। এখনও (ওয়ানডে সিরিজের) দুটি ম্যাচ বাকি আছে। আমাদের জন্য সবসবয়ই (বিদেশের মাটিতে খেলা) খুব কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। বিশেষ করে, নিউজিল্যান্ডে। এখানে আমরা এখনও কোনো ম্যাচ জিতিনি। আশা করছি, সামনের ম্যাচে আমরা নিজেদের সেরাটা দিতে পারব।’

ওয়ানডে সিরিজের পরবর্তী দুই ম্যাচ মাঠে গড়াবে যথাক্রমে ২৩ ও ২৬ মার্চ।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button