খেলা

সাকিবে স্তম্ভিত দুর্জয়, পাচ্ছেন রহস্যের গন্ধ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

বাংলাদেশ হাই পারফর‌ম্যান্সে ইউনিটের (এইচপি) দায়িত্ব ও কর্তব্য নিয়ে সাকিব আল হাসানের করা মন্তব্যে স্তম্ভিত ইউনিটের চেয়ারম্যান নাইমুর রহমান। শুধু তাই নয়, এই মন্তব্যের পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে কিনা কিংবা কারও ইন্ধন আছে কিনা সেব্যাপারেও তিনি সন্দিহান।

বিজ্ঞাপন

গতকাল একটি অনলাইন পোর্টালের লাইভ অনুষ্ঠানে হাই পারফরম্যান্স ইউনিট সম্পর্কে সাকিবের করা মন্তব্যের প্রেক্ষিতেই এমন প্রতিক্রিয়া জানান দুর্জয়।

রোববার (২১ মার্চ) সন্ধ্যায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বাসায় সাকিব ইস্যুতে করা জরুরি সভা শেষে তিনি এই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

বিজ্ঞাপন

দুর্জয় বলেন, ‘আপনারা সবাই জানেন যে এইচপি চার-পাঁচ বছর আগে কোথায় ছিল আর এখন কোথায়, আমাদের অনূর্ধ্ব-১৯ এর ক্রিকেটাররা এইচপি হয়ে জাতীয় দলে কিন্তু বেশ কয়েকজন খেলেছে এবং পারফরম করেছে। তো সেটা কিন্তু আসলে একেবারেই উন্মুক্ত একটা চিত্র। তারপরেও যখন এইচপি ভালো করছে, দেখেন কয়েকজন জাতীয় ক্রিকেটার সমৃদ্ধ আয়ারল্যান্ড উলভসের সঙ্গে পুরো সিরিজটা জিতেছে। তো যখন ভালো করছে এইচপি তখন এই কথা বলা এই প্রশ্ন তোলা আমার কাছে খুব সারপ্রাইজিং এর পেছনে কিছু আছে না কিনা আমি জানি না।’

এবার দেখে নেয়া যাক গতকাল লাইভে সাকিব হাই পারফরম্যান্স এর দায়িত্ব জ্ঞান নিয়ে ঠিক কী বলেছিলেন?

বিজ্ঞাপন

‘দেখেন আমি এখন ৩৪ বছরে পড়ব। আপনার কি মনে হয় আমার ক্রিকেট ক্যারিয়ার আর কত বছর আছে? যদি খুব ভালো ক্রিকেট খেলি সর্বোচ্চ চার বছর খেলব। এর বেশি হয়তো চাইলেও সম্ভব হবে না। অতএব আপনার প্লেয়ার দরকার বিশেষ করে যারা এখন তরুণ আছে, যারা দেশকে প্রতিনিধিত্ব করবে। তাদের ও তো নিজেদের তৈতি করার ব্যাপার আছে। আমাদের যদি ব্যাকআপ প্লেয়ার না থাকে সেটা খুবই হতাশাজনক। আমাদের এইচপি আছে কিন্তু গত চার পাঁচ বছরে এইচপি কয়টা প্লেয়ার তৈরি করেছে আমার জানা নাই। আমি তো এমন কোনো কার্যক্রম দেখি না যে এইচপিকে নিয়ে আশা করব।’

প্রসঙ্গত, গতকাল দেশের একটি অনলাইন পোর্টালে লাইভ অনুষ্ঠানে এসে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালকদের কটাক্ষ করে কথা বলেন সাকিব আল হাসান। এর প্রেক্ষিতেই আজ সন্ধ্যায় বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বাসায় জরুরী সভা ডাকা হয়। সেখানে বিসিবি সভাপতি সহ উপস্থিত ছিলেন গ্রাউন্ডস কমটিরি চেয়ারম্যান মাহবুব আনাম, ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান, হাই পারফরম্যান্স ইউনিটের (এইচপি) চেয়ারম্যান নাইমুর রহমান দুর্জয় ও সিইও নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button