আইন-বিচার

গাজীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচন চেয়ে হাইকোর্টে রিট

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে স্থগিত থাকা গাজীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচন চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২২ মার্চ) গাজীপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ সামসুল হক রিপন হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট আবেদন করেন।

রিট আবেদনে অ্যাডহক কমিটি গঠনের মাধ্যমে গাজীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচন করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারির আরজি জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

নিয়মিত আদালত খুললে এ আবেদনটি শুনানির জন্য হাইকোর্টে উপস্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন রিট আবেদনকারীর আইনজীবী মোহাম্মদ মেহেদী হাসান।

রিট আবেদনে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক, গাজীপুর জেলার সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক ও গাজীপুর জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে বিবাদী করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

রিট আবেদনে বলা হয়, গাজীপুর প্রেসক্লাবের সবশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৯ সালের ২০ এপ্রিল। প্রেসক্লাবের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রতিবছর বার্ষিক সাধারণসভা শেষে নির্বাচন হবার কথা। নির্ধারিত মেয়াদ শেষে ২০১৯-২০ সালের কমিটি পরবর্তী কমিটি (২০২০-২১) গঠনের জন্য একটি নির্বাচন কমিশন গঠন করে ২০২০ সালের ৯ মার্চ।

একইসঙ্গে ২০২০ সালের ১০ এপ্রিল ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে নির্বাচনি তফসিল ঘোষণা করা হয়। কিন্তু, করোনাভাইরাসের সংক্রমণের প্রেক্ষাপটে গত বছর ১৯ মার্চ সব ধরনের ক্লাবের কার্যক্রম বন্ধ করে গাজীপুর জেলা ম্যাজিস্ট্রেট গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেন।

বিজ্ঞাপন

ওই গণবিজ্ঞপ্তিতে গাজীপুর জেলায় সব ধরনের সভাসমাবেশ, সেমিনার, সামাজিক অনুষ্ঠান, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও সকল ধরনের ধর্মীয় গণজমায়েত স্থগিত করা হয়। ফলে গাজীপুর প্রেসক্লাবের নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়। সরকারি এই সিদ্ধান্তের পর প্রেসক্লাব পরিচালনা কমিটি নির্বাচনসহ সকল কার্যক্রম স্থগিত করে গত বছর ২৭ এপ্রিল। পরবর্তীতে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে আসলে ওই কমিটি নির্বাচন করার জন্য গত বছর ২৯ ডিসেম্বর গাজীপুর জেলা প্রশাসক ও জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপপরিচালকের কাছে আবেদন করেন গাজীপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ সামসুল হক রিপন। কিন্তু, সংশ্লিস্টরা ওই আবেদনে সাড়া না দেওয়ায় গত ১০ মার্চ সংশ্লিস্টদের প্রতি আইনি নোটিশ পাঠানো হয়।

এরপরও নোটিশের জবাব না দেওয়ায় সোমবার রিট আবেদন করা হয় বলে জানান রিটকারী আইনজীবী মোহাম্মদ মেহেদী হাসান।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/কেআইএফ/এমআই


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button