অর্থ-বাণিজ্য

গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে ২২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে দেশের গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে ২২০৩ কোটি ৭৭ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। এই বরাদ্দ সরকারের নির্বাচনি ইশতেহার অনুযায়ী
‘আমার গ্রাম আমার শহর’ বাস্তবায়নের পাশাপাশি গ্রামীণ রাস্তা-ঘাট নির্মাণ ও সংস্কার এবং অবকাঠামো উন্নয়নে সহায়ক হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

বিজ্ঞাপন

জানা গেছে, প্রতিটি নির্বাচনি এলাকার জনপ্রতিনিধি, সংসদ সদস্য, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক ও উপজেলা পরিষদ এবং পৌরসভার অনুকূলে এসব বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এই বরাদ্দের মধ্যে কাবিটা’য় প্রথম কিস্তিতে ৩৮০ কোটি ৫১ লাখ ও দ্বিতীয় কিস্তিতে ২৭৯ কোটি ৫২ লাখ টাকা করে মোট ৬৬০ কোটি দুই লাখ টাকা এবং টিআর খাতে প্রথম ও দ্বিতীয় কিস্তিতে ২৭৮ কোটি টাকা করে মোট ৫৫৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ কাবিটা ও টিআর খাতে প্রথম ও দ্বিতীয় কিস্তিতে মোট এক হাজার ২১৬ কোটি দুই লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ।

এছাড়া জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে চলমান কর্মসূচির আওতায় অধিক গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। সে লক্ষ্যে এবার প্রথম ও দ্বিতীয় কিস্তির অতিরিক্ত তৃতীয় কিস্তিতে অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। প্রথমবারের মতো এবার তৃতীয় কিস্তিতে কাবিটা খাতে ৫৭০ কোটি ৭৭ লাখ টাকা এবং টিআর খাতে ৪১৭ কোটি টাকাসহ মোট ৯৮৭ কোটি ৭৭ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ।

বিজ্ঞাপন

তৃতীয় কিস্তিতে সংসদ সদস্যদের প্রতি নির্বাচনি এলাকায় কাবিটা খাতে এক কোটি সাত লাখ ৮১ হাজার ২৮৪ টাকা এবং টিআর খাতে ৭৪ লাখ ৩৬ হাজার পাঁচশ’ টাকা করে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রতিটি সংরক্ষিত মহিলা আসনে কাবিটা খাতে ৩৪ লাখ ২৪ হাজার ৬৪৩ টাকা এবং টিআর খাতে ২৫ লাখ দুই হাজার টাকা করে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ।

প্রতি উপজেলা পরিষদে কাবিটা খাতে গড়ে ৫২ লাখ ২০ হাজার ৪৯২ টাকা এবং টিআর খাতে ২৯ লাখ ৬৬ হাজার ৪৬৩ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া প্রতিটি বিভাগে টিআর খাতে ৭৮ লাখ ১৮ হাজার ৭৫০ টাকা করে মোট ছয় কোটি ২৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও প্রতিটি জেলায় ১৯ লাখ ৫৪ হাজার ছয়শ’ সাতাশি টাকা করে মোট ১২ কোটি ৫০ লাখ ৯৯ হাজার ৯৬৮ টাকা এবং প্রতিটি পৌরসভায় ৫ লাখ ৮ হাজার ৫৩৬ টাকা করে বরাদ্দ দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/এসএসএ


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button