রাজনীতি

মোদির আমন্ত্রণ প্রত্যাহারের দাবিতে বাম জোটের কালো পতাকা মিছিল

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবে উগ্র সাম্প্রদায়িক নরেন্দ্র মোদিকে প্রদত্ত আমন্ত্রণ করায় এবং তা প্রত্যাহারের দাবিতে কালো পতাকা মিছিল করবে বাম গণতান্ত্রিক জোট। আগামী ২৪ মার্চ, বুধবার সকাল ১১ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ ও কালো পতাকা মিছিল শুরু হবে।

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও এদিন দেশব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশ করবে বাম জোট। সোমবার (২২ মার্চ) এক বিবৃতিতে এই কর্মসুচির ঘোষণা করে বাম জোটের নেতৃবৃন্দ।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে গুজরাটে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার হোতা হিন্দুত্ববাদী আরএসএস’র প্রচারক উগ্র সাম্প্রদায়িক নরেন্দ্র মোদিকে আমন্ত্রণ জানানোর তীব্র নিন্দা জানান বাম জোটের নেতারা। তারা অবিলম্বে আমন্ত্রণ প্রত্যাহারের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

বিজ্ঞাপন

ওই বিবৃতিতে বলা হয়, পঞ্চাশ বছরপূর্বে ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি শোষকদের বিরুদ্ধে আমাদের সশস্ত্র লড়াইয়ে ভারতের জনগণ ও তৎকালীন সরকার আমাদের এক কোটি উদ্বাস্তু জনগণ ও যোদ্ধাদের পাশে দাঁড়িয়েছিল। আমরা কৃতজ্ঞচিত্তে ভারতীয় জনগণ ও তাদের নিহত ও আহত সৈনিকদের স্মরণ করছি। তাদের প্রতি আমাদের এ শ্রদ্ধা চিরকালীন।

নেতারা আরও বলেন, আমাদের মুক্তিযুদ্ধ ছিল ঔপনিবেশিক শোষণের বিরুদ্ধে, সাম্প্রদায়িক শাসনের বিরুদ্ধে এবং মানুষের গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য। ৩০ লাখ মানুষের জীবনের বিনিময়ে, যৌন সহিংসতার শিকার দুই লাখ মা-বোনের ত্যাগের বিনিময়ে প্রাপ্ত স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবে ধর্মীয় সংখ্যালঘু, দলিত, আদিবাসী সমাজের নিপীড়িত মানুষের রক্তে হাত রঞ্জিত করা কোনো উগ্র সামপ্রদায়িক ব্যক্তির জায়গা হতে পারে না।

বিজ্ঞাপন

বাম নেতারা বলেন, উগ্র সাম্প্রদায়িক নরেন্দ্র মোদিকে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবে আমন্ত্রণ জানিয়ে সরকার শহীদদের অবমাননা করেছে। সরকার নিজের ক্ষমতা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশের মানুষের অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে পদদলিত করে মোদির মত সাম্প্রদায়িক ব্যক্তিকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের সমন্বয়ক আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন, সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম, বাসদ সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, বাসদ (মার্কসবাদী)’র সাধারণ সম্পাদ মুবিনুল হায়দার চৌধুরী, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, ইউসিএলবি’র সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন নান্নু, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু, ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী)’র সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির জাহিদ, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের সভাপতি হামিদুল হক এই বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এএইচএইচ/এনএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button