অর্থ-বাণিজ্য

৩ কার্যদিবস সূচকের পতনের পর পুঁজিবাজার ঊর্ধ্বমুখী

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: অবশেষে পুঁজিবাজারে পতন থেমেছে। করোনাভাইরাস নিয়ে নানাধরনের গুজবের কারণে গত দুই সপ্তাহ পুঁজিবাজারে অস্থিরতা গেছে। সর্বশেষ তিন কার্যদিবসে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) প্রধান সূচক হারিয়েছে ১৮৪ পেয়েন্ট। একই অবস্থা ছিল দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্রগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই)। তবে সোমবার (২২ মার্চ) দিনশেষে দেশের উভয় পুঁজিবাজারে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দিয়ে শেষ হয়েছে লেনদেন।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২২ মার্চ) দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৩৫২টি কোম্পানির ২১ কোটি ২৭ লাখ ৯৩ হাজার ৭৬৬টি শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে। লেনদেন হওয়া এসব কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৮৮টির, কমেছে ৫৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১০৮টির দাম। দিনশেষে ডিএসইতে আর্থিক লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৬৯৩ কোটি ১৭ লাখ টাকা। আগের দিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৬১৫ কোটি ৯৭ লাখ টাকা।

এদিন ডিএসই ব্রড ইনডেক্স আগের কার্যদিবসের চেয়ে ৬২ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৪১২ পয়েন্টে উন্নীত হয়। এছাড়াও ডিএসই-৩০ মূল্য সূচক ৩২ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ৬৬ পয়েন্ট এবং ডিএসইএস শরীয়াহ সূচক ৯ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২৩৫ পয়েন্টে নেমে আসে।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে অপর পুঁজিবাজার চট্রগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) এদিন ২১৭ কোম্পানির ১ কোটি ৬১ লাখ ৫১ হাজার ১৫৩টি শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। লেনদেন হওয়া এসব শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে দাম বেড়েছে মাত্র ১২২টির, কমেছে ৪৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৬টির কোম্পানির শেয়ারের দাম। দিনশেষে সিএসইর প্রধান সূচক আগের দিনের চেয়ে ১৯১ পয়েন্ট বেড়ে ১৫ হাজার ৬৭৭ পয়েন্টে উন্নীত। এদিন সিএসইতে ৩২ কোটি ৫৮ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়। আগের দিন সিএসইতে ২৫ কোটি ২৯ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছিল।

সারাবাংলা/জিএস/পিটিএম


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button