বিনোদন

মুক্তিযুদ্ধের অসামান্য দলিল ‘ওরা ১১ জন’

এন্টারটেইনমেন্ট করেসপনডেন্ট

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সংগ্রামের উপর নির্মিত প্রথম চলচ্চিত্র ‘ওরা ১১ জন’। মাসুম পারভেজের প্রযোজনায় চাষী নজরুল ইসলাম নির্মাণ করেছিলেন ছবিটি। এটি শুধু একটি চলচ্চিত্রটিকে এখনও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে নির্মিত অন্যতম সেরা ছবি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।

বিজ্ঞাপন

এ ছবির নির্মাণের পিছনের গল্প বেশ কয়েকটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন চাষী নজরুল ইসলাম। সদ্য স্বাধীন দেশে কয়েকজন তরুণ মিলে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে নির্মাণ করেছিলেন ছবিটি।

চাষী নজরুল ইসলাম এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন, তিনি মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে ছবিটি নির্মাণের পরিকল্পনা করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, ‘তখন মুক্তিযুদ্ধ চলছে। কোনরকমে প্রাণ বাঁচিয়ে চলি। ওইসময়ে প্রতিজ্ঞা করেছিলাম, যদি বেঁচে থাকতে পারি তাহলে অবশ্যই একদিন এ যুদ্ধ নিয়ে সিনেমা বানাবো।’

বিজ্ঞাপন

দেশ স্বাধীনের পর তিনি তার প্রতিজ্ঞা রেখেছিলেন। ছবিটি নির্মাণে প্রযোজক হিসেবে পাশে পেয়েছিলেন বন্ধু মাসুম পারভেজ সোহেল রানাকে। ১৯৭২ সালেই ছবিটি নির্মাণ করে মুক্তি দিয়েছিলেন।

চাষী নজরুল তুলে ধরেছিলেন যুদ্ধে পাকিস্তানিদের নৃশংসতার ইতিহাস। তুলে এনেছিলেন গেরিলা যোদ্ধাদের বীরত্ব গাঁথা। একই সঙ্গে বীরঙ্গনাদের আত্মত্যাগের গল্প। একই সঙ্গে তিনি দেখিয়েছেন এদেশীয় দালালদের পাকিস্তানিদের চামচামি ও তাদের পরিণতি।

বিজ্ঞাপন

ছবিটির নামকরণ নিয়ে তিনি বলেছিলেন, আমাদের স্বাধীনতা আন্দোলনের বীজ বপিত হয়েছিল ১১ দফা ছাত্র আন্দোলন থেকে, যা পরবর্তীকালে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে রূপ নেয়। তাছাড়া আমাদের মুক্তিযুদ্ধে ১১ জন সেক্টর কমান্ডার ছিলেন। এই চিন্তা থেকে সবার সম্মতিক্রমে ছবির নাম নির্বাচিত হল ‘ওরা ১১ জন’।

খসরু, মুরাদ, হেলাল, বেবি, নান্টু, ওলীন, মঞ্জু, আতা, ফিরোজ, আবু, আলতাফ— এ ১১ জন সত্যিকারের মুক্তিযোদ্ধা অভিনয় করেছিলেন ছবিটিতে।  তারা ছাড়াও  অভিনয় করেছিলেন রাজ্জাক, শাবানা, নূতন, সৈয়দ হাসান ইমাম, রওশন জামিল, খলিল, মেহফুজ সহ আরো অনেক। ছবির বেশির ভাগ শুটিং হয় জয়দেবপুর ক্যান্টনমেন্টে। পুরো ছবি তৈরি করতে খরচ হয় প্রায় পাঁচ লাখ টাকা। জানা যায়, ছবি মুক্তির প্রথম সপ্তাহেই খরচের টাকা উঠে এসেছিল।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এজেডএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button