খেলা

তবে কি ৩০-০ থেকে ৩১-০?

স্পোর্টস ডেস্ক

‘আমরা ভুল থেকে শিক্ষা নিতে চাই, আগামী ম্যাচে এসব ভুল করতে চাই না’। এ যেন প্রত্যেকটা সিরিজ শেষে কিংবা হতশ্রী পারফরম্যান্সের পরে টাইগারদের নিত্য দিনের বুলি। চলতি নিউজিল্যান্ড সিরিজে ব্যর্থতাতে আছে এই একই শব্দের ভাণ্ডার। এর মধ্যেই নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশে ম্যাচ হারের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩০টিতে। তিন ম্যাচের ওয়ানডেতে হোয়াইটওয়াশ এরপর তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টির প্রথমটিতেও ৬৬ রানের বিশাল ব্যবধানের হার। সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে নেপিয়ারে মাঠে নামবে দুই দল। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায়।

বিজ্ঞাপন

২৮ মার্চ সকালে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। হ্যামিল্টনে অসহায় আত্মসমপর্ণের পর কিউইদের মাঠে সব ফরম্যাট মিলিয়ে মোট ৩০টি ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ দল। নেপিয়ারে আগামীকাল ৩১তম ম্যাচ খেলতে মাঠে নামছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

পড়ুন: আত্মতুষ্টিতে ভুগছেন না নাসুম

বিজ্ঞাপন

টাইগারদের এমন দুর্দশার পর প্রথম টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হওয়া নাসুম আহমেদের আক্ষেপ ডেভন কনওয়ের ক্যাচ মিস করা নিয়ে। নাসুম বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে ঐ একটা ক্যাচ। ঐ সময় কনওয়ের রান ৪৭ ছিল। এরপর করল ৯২। ঐ ক্যাচটা হলে হয়তো বা আরও ২০টা রান কম থাকত। ঐ জায়গায় আমরা একটু পিছিয়ে গেছি।’

হ্যামিল্টনের সিডন পার্কের বাউন্ডারি ছিল ছোট। উইকেটও বেশ ব্যাটিং সহায়ক। ফলে বড় সংগ্রহ হলেও বাংলাদেশের তাড়া করার সুযোগ ছিল মনে করেন আফিফ। সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি বাংলাদেশ। ১৪৪ রানে গুটিয়ে গিয়ে ৬৬ রানে ম্যাচ হারা বাংলাদেশের পক্ষের সেরা পারফর্মার আফিফ। ছয় নম্বরে নেমে ৩৩ বলে ৪৫ রান করেন তরুণ এই অলরাউন্ডার।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচ শেষে বলেছেন, ‘ব্যাটিংয়ের জন্য আমার মনে হয় উইকেটটা ভালোই ছিল। কারণ স্টেটে একটু ছোট গ্রাউন্ড ছিল, তো ব্যাটসম্যানদের পক্ষে ছিল যে জিনিসটা। ওদের ব্যাটসম্যানরা এই যে গ্রাউন্ডের বেনিফিটটা বেশ ভালোভাবে নিতে পেরেছে। আমরা আরও ভালো ব্যাটিং করতে পারতাম হয়তো। মাঠের সাইজ যেহেতু ছোট ছিল এধরনের স্কোর অবশ্যই তাড়া করা সম্ভব ছিল বলে আমার মনে হয়। আমাদের ব্যাক টু ব্যাক উইকেটগুলো না পরলে হয়তো এই রান আমরা তাড়া করতে পারতাম।’

তবে শেষ পর্যন্ত দোষটা যতটা না বোলারদের কাঁধে বর্তেছে তার থেকে বেশি দায়ি ব্যাটসম্যানদের হতশ্রী পারফরম্যান্স।

বিজ্ঞাপন

দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিমকে পাওয়া যাচ্ছে না। কাঁধের চোটের কারণে প্রথম ম্যাচেও ছিলেন না তিনি। ধারণা করা হচ্ছে গোটা সিরিজটাই তিনি মিস করতে যাচ্ছেন।

নিউজিল্যান্ডের সম্ভাব্য একাদশ: ফিন অ্যালেন, মার্টিন গাপটিল, ডেভন কনওয়ে, উইল ইয়াং, গ্লেন ফিলিপস, মার্ক চ্যাপম্যান, ড্যারিল মিচেল, টিম সাউদি, ইস সোধি, লকি ফারগুসন এবং হামিস বেনেট।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: লিটন দাস, মোহাম্মদ নাইম, সৌম্য সরকার/নাজমুল হোসেন শান্ত, মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, মেহেদি হাসান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, শরিফুল ইসলাম/তাসকিন আহমেদ, নাসুম আহমেদ এবং মোস্তাফিজুর রহমান।

বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার চলমান সিরিজটি বাংলাদেশের দর্শকদের জন্য সরাসরি সম্প্রচার করছে জিটিভি এবং দেশের বহুল পরিচিত অনলাইন প্ল্যাটফর্ম র‍্যাবিটহোল। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজের সবগুলো ম্যাচ র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইটের সঙ্গে সঙ্গে দেখা যাচ্ছে ইউটিউবেও। র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইট www.rabbitholebd.com এবং ইউটিউব চ্যানেলেও প্রত্যেকটি ম্যাচ দেখা যাচ্ছে বিনামূল্যেই।

সারাবাংলা/এসএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button