সারাদেশ

বগুড়ায় মন্দিরে মূর্তি ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

বগুড়া: বগুড়ায় একটি মন্দিরে অগ্নিসংযোগ ও মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) ভোরে জেলার ধুনট উপজেলার ট্যাংরাখালী গ্রামে রাধা-গোবিন্দ মন্দিরে এ ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

জানা গেছে, ধুনটের ট্যাংরাখালী হালদার পাড়া গ্রামের একমাত্র মন্দির এটি। যেখানে সকল পুজা ও হরি বাসর অনুষ্ঠিত হয়। মন্দিরে প্রতিদিন সন্ধ্যাবাতি ও পূজা করার জন্য সুমতি রানী নামের একজন সেবায়েত দায়িত্ব পালন করেন। তিনি প্রায়ই ওই মন্দিরে ঘুমান। গত ১৬ ফেব্রুয়ারি স্বরসতী পূজা শেষে মন্দিরেই প্রতিমা রাখা হয়। সেই প্রতিমার মাথা ভেঙে, মন্দিরের কাপড়ে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর করে দুর্বৃত্তরা।

সেবায়েত সুমতি রানী জানান, গতরাতে পূজা করে বাড়িতে গিয়েছিলাম। ভোরে মন্দিরে ফিরি। মন্দিরে এসেই দেখি আমার থাকার কাপড়ে আগুন জ্বলছে। মন্দিরের বেড়া এবং কিছু কাপড় পুড়ে গেছে। সেই সঙ্গে রাধা গোবিন্দের এক পাশে রাখা সরস্বতী প্রতিমার মাথা ভেঙে পড়ে আছে। একটা হাতও ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় ইউপি সদস্য বাবু জানান, রাতের বেলায় কে বা কারা মূর্তি ভেঙে মন্দিরে আগুন দিয়েছে এবং মাটির বিভিন্ন জিনিসপত্র ভাঙচুর করে। এ সময় মন্দিরে কেউ ছিল না। পরে আমরা সকলে গিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলি।

ধুনট চৌকিবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জুলফিকার আলী ভুট্টো জানান, মন্দিরে আগুনের ঘটনা শুনে সকালে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। সকলের সঙ্গে কথা বলেছি। কি কারণে ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে তা বলতে পারব না।

বিজ্ঞাপন

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা জানান, ভোরে ঘটনাটি ঘটেছে। এখনো এ বিষয়ে কিছু জানা যায়নি। দ্রুত জড়িতদের শনাক্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে দুপুর পর্যন্ত এ ঘটনায় কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

তবে স্থানীয় একটি সূত্র বলেছে, ট্যাংরাখালী জলা নিয়ে দুটি গ্রুপের বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটতে পারে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এনএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button