আইন-বিচার

সামিয়া রহমানের মামলার প্রতিবেদন ২০ মে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সামিয়া রহমানের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলাটি তদন্ত করে আগামী ২০ মে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছে ট্রাইব্যুনাল।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) সকালে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস সামছ জগলুল হোসেনের আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে সিআইডিকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। মামলাটিতে আগামী ২০ মে’র অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন আদালত।

সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নজরুল ইসলাম শামীম এ তথ্য জানান।

বিজ্ঞাপন

এরআগে ৩১ মার্চ এলেক্স মার্টিন নামে এক বিদেশি নাগরিকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলাটি দায়ের করেন সামিয়া রহমান। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ শেষে আদেশ অপেক্ষমান রাখেন। পরে আজ সকালে আদালত এ বিষয়ে আদেশ দিলেন।

অভিযোগ করা হয়, ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর সামিয়া রহমান এবং ক্রিমোনলজি বিভাগের প্রভাষক সৈয়দ মাহফুজুল হক মারজানের বিরুদ্ধে প্লেজারিজমের অভিযোগে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটি শিকাগো জার্নালের ওই বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর ই-মেইলের ভিত্তিতে সামিয়া রহমানকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক থেকে ডিমোশন (অবনমিত) দিয়ে সহকারী অধ্যাপক করার যে সুপারিশ করে তা সম্পূন্ন মিথ্যা, ভুয়া ও বানোয়াট এবং সৃজিত।

বিজ্ঞাপন

আরও বলা হয়, ওই তারিখে শিকাগো জার্নাল থেকে অফিসিয়ালি সামিয়া রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে কোনো ই-মেইল কখনোই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ই-মেইলে পাঠানো হয়নি। এলেক্স মার্টিন বলে শিকাগো জার্নালে কেউ কখনো কাজ করেনি। এমনকি শিকাগো প্রেসেও এলেক্স মার্টিন বলে কোনো ব্যক্তি নেই। সামিয়া রহমান তার ফেসবুক আইডি শিকাগো জার্নালের অফিসিয়াল এডিটর ক্রেইজ ওয়াকারের সাথে যোগাযোগ করে অভিযুক্তের তথ্যের সত্যতা সম্পর্কে জানতে চান। ক্রেইজ ওয়াকার জানিয়েছেন, এলেক্স মার্টিন বলে কেউ কখনো শিকাগো জার্নালে ছিল না, কেউ নেই এবং এলেক্সশিকাগোজার্নাল@জিমেইল.কম নামে তাদের কোনো ই-মেইল আইডি নেই।

এখানে কথিত এলেক্স মার্টিন সেই ডোমেইনও ব্যবহার করেননি। সৃজিত/নিজস্ব ব্যক্তিগত এলেক্সশিকাগোজার্নাল@জিমেইল.কম থেকে মেইলটি পাঠানো হয় এবং এখন পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সেই মেইলের কোনো সফট কপি সামিয়া রহমানকে দেয়নি। মিথ্যা ও বানোয়াট মেইল আইডির ওপর ভিত্তি করেই সামিয়া রহমানকে ‘চৌর্যবৃত্তির’ মিথ্যা অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়।

বিজ্ঞাপন

সামিয়া রহমান শিকাগো জার্নালের ওয়েবসাইট শিকাগোজার্নাল.কম-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে জানতে পারেন, তাদের অফিসিয়াল ই-মেইল আইডি এডিটর@শিকাগোজার্নাল.কম এবং ওয়েব সাইটের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি ক্রেইজ ওয়াকার। এতে বুঝা যায়, শিকাগো জার্নালে এলেক্সশিকাগোজার্নাল@জিমেইল.কম নামে কোনো অফিসিয়াল ই-মেইল আইডি নেই। বিষয়টি সামিয়া রহমানের সন্দেহ ও উদ্বেগজনক মনে হলে গত ২১ ফেব্রুয়ারি অন্য এক জায়গায় যোগাযোগ করলে এলেক্স মার্টিন ফেক নাম এবং ওই মেইল আইডি তৈরিকৃত এবং সৃজিত। মামলার আবেদনে আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ আমলে গ্রহণ করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

সারাবাংলা/এআই/এমআই


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button