সারাদেশ

‘স্ত্রী-সন্তানকে হত্যার উদ্দেশ্যে’ দরজা বন্ধ করে বাড়িতে আগুন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

বগুড়া: জেলার শেরপুরে স্ত্রী ও ছেলেকে হত্যার উদ্দেশ্যে দরজা বন্ধ করে দিয়ে বাড়িতে আগুন দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে। শনিবার (৩ এপ্রিল) সকাল ১১ টায় শেরপুর পৌর শহরের ৯নং ওয়ার্ডের খন্দকার পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

অভিযুক্ত নজরুল ইসলাম ওই এলাকার মৃত দুদু মিয়ার ছেলে। শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

জানা যায়, নজরুল ইসলাম গত চার বছর আগে বরিশালে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এরপর থেকে প্রথম স্ত্রী শাহানাজকে কোনো খরচ না দিয়ে তাদেরকে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়ার জন্য বিভিন্ন সময় নানাভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছিলেন। আজ (শনিবার) সকাল ৯টায় বাড়িতে এসে ছেলে নোমান, পুত্রবধূ মুক্তা ও মা শাহানাজ খাতুনকে বেধড়ক মারপিট করে এবং বাড়িঘর ভাঙচুর করে নজরুল। এ সময় তাদেরকে ঘর থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করেন তিনি। এ সময় তারা জীবন রক্ষার্থে ৯৯৯ ফোন করলে শেরপুর থানার পুলিশ সেখানে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এরপর ১১টার দিকে আবারও বাড়ির দরজা বন্ধ করে দিয়ে স্ত্রী-ছেলে পুত্রবধুকে হত্যার উদ্দেশ্যে বাড়ির গেট বন্ধ করে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় নজরুল ইসলাম। পরে এলাকাবাসী বাহির থেকে আগুন জ্বলতে দেখে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে।

বিজ্ঞাপন

ছেলে নোমান জানান, আমাদেরকে হত্যার উদ্দেশ্যে বাড়ির দরজা বন্ধ করে দিয়ে বাবা আগুন লাগিয়ে দেয়।

স্ত্রী শাহানাজ খাতুন জানান, দ্বিতীয় বিয়ের পর থেকে আমাদেরকে বিভিন্নভাবে জীবননাশের হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে নজরুল। বাড়ি থেকে বের হয়ে না যাওয়ার কারণেই আমাদেরকে হত্যার উদ্দেশ্যে বাহির থেকে দরজা বন্ধ করে বাড়িতে আগুন দেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে নজরুলের সঙ্গে যোগাযোগ করতে চাইলে, তার মোবাইল বন্ধ থাকায় যোগাযোগ করা যায়নি।

এ ব্যাপারে শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ জানান, আমরা ৯৯৯ থেকে একটি ফোন পেয়েছিলাম সেখানে বাড়িতে ভাঙচুর হচ্ছে, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। সেখানে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পর আবারও আগুন লাগিয়েছে— এমন অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এনএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button