খেলা

মানসিকতা বদলান পারফরম্যান্স বদলে যাবে

মহিবুর রহমান, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশ দলের শ্রীহীন পারফরম্যান্স দেখে নিজের অজান্তেই ৯০’র দশকে ফিরে গিয়েছিলেন সারোয়ার ইমরান। স্মৃতির পুকুরে টুপ করে ডুব দিয়ে ভুস করে উঠে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট ম্যাচের প্রধান কোচ বলছিলেন- আমরা তখন ভারত কিংবা পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলতে নামার আগেই ভাবতাম, জেতা তো আর সম্ভব না কোনো রকম ৫০ ওভার খেলতে পারলেই হলো। মানে ম্যাচে অংশ নেয়া বা সম্মানজনক হারই ছিল তদানিন্তন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের দলের অভিষ্ট লক্ষ্য। পরিতাপের বিষয় হলো, দুই দশক পরে এসেও তিনি সেই বাংলাদেশকেই দেখছেন! যা তার জন্য নিদারুণ পীড়ার কারণ।

বিজ্ঞাপন

পুরোনো স্মৃতি হাতড়ে কথাগুলো তিনি একারণেই বলেছেন, আজও বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা নিউজিল্যান্ড বা দক্ষিণ আফ্রিকায় সিরিজ খেলতে গেলে ভারাডুবির কারণ হিসেবে কন্ডিশনের দোহাই দিয়ে থাকেন। হরহামেশাই তাদের বলতে শোনা যায়, ওখানকার আবহাওয়া, উইকেট কন্ডিশন সবই নাকি বাংলাদেশের বিরুদ্ধে! সেখানে গেলে নাকি জয়ের কাজটি ভীষণ দূরহ হয়ে দাঁড়ায়। বাজে ব্যাটিং, বোলিং তো আছেই এমনকি ফিল্ডিংয়ের পেছনেও তারা কন্ডিশন ও আবহাওয়ার দায় দিয়ে থকেন। এই যেমন গতকালই নিউজিল্যান্ড থেকে সিরিজ খেলে দেশে ফিরে বাংলাদেশ দলের বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ ক্যাচ মিসের কারণ ব্যখা দিতে গিয়ে বলছিলেন-‘ঝকঝকে আকাশের কারণেই নাকি তাদের ক্যাচ মিস হয়েছে।’ নামান্তরে তা কী ফল বয়ে এনেছে সবাই দেখেছেন।

মানসিকতা বদলান পারফরম্যান্স বদলে যাবে

বিজ্ঞাপন

হালের ক্রিকেটারদের এমন অর্বাচীনতায় ভরা কথাবার্তায় সারোয়ার ইমরানের কাছে তাদের খর্ব শক্তির মানসিকতাই স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। অর্থাৎ তারা হারার আগেই হেরে যাচ্ছেন। দিনের পর দিন বিদেশ বিভুঁয়েই সিরিজ খেলতে যাচ্ছেন ঠিকই কিন্তু এমন মানসিকতার কারণেই জয়ের ভাবনা তাদের কাছে অলীক মনে হয় এবং এতে করেই তারা হারের দুষ্ট চক্রে আটকে গেছেন। চক্র ভাঙতে এই মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসার কোনো বিকল্প নেই বলে সোজা সাপ্টা জানিয়ে দিলেন এই ক্রিকেট বোদ্ধা।

২০০৭ সাল থেকে আজ অবধি নিউজিল্যান্ড সফরে তিন ফরম্যাট মিলে ৩২টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। কিন্তু একটিতেও জয়ের উল্লাসে মাতোয়ারা হয়ে মাঠ ছাড়া হয়নি। এর পেছনে কারণ একটিই, মানসিকতা! কালের পরিক্রমায় যে বাংলাদেশ দল আজ ওয়ানডে ক্রিকেটে এশিয়ার পরাশক্তির তকমা পেয়ে গেছে সেই তারাই যদি খর্ব শক্তির মানসিকতা নিয়ে খেলেন এবং হারের কারণ হিসেবে কন্ডিশনের দায় দিয়ে থাকেন তাহলে বিষয়টি তাদের জন্য তো বটেই গোটা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ও বাংলাদেশের জন্যও বিব্রতকর। কাজেই বিদেশ বিভুঁয়েই ধুন্ধুমার পারফর্ম করতে মানসিকতা বদলের কোনো বিকল্পই দেখছেন না সারোয়ার ইমরান।

বিজ্ঞাপন

মানসিকতা বদলান পারফরম্যান্স বদলে যাবে

সারাবাংলার সঙ্গে একান্তে আলাপকালে সেসব কথা জানিয়েই বললেন, ‘আপনি কখনোই হারার আগে হারবেন না। আমাদের দলের সমস্যা হলো, তারা সিরিজ খেলার আগেই মনে করে ওখানে গেলে বুঝি আমরা পারব না। যে কন্ডিশন তাতে কোনো রকম খেলে এলেই হলো। এটা উচিত নয়। এখনকার দলের অবস্থা আমাদের ৯০’র দশকের দলের মতো। তখন আমরা ভারত, পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলতে নামলে ভাবতাম কোনো রকম ৫০ ওভার খেলে আসতে পারলেই হলো। তখন সম্মানজনক হারই আমাদের লক্ষ্য ছিল। খুব খারাপ লাগে যখন দেখি আমাদের এই দলটির অবস্থাও একই।’

বিজ্ঞাপন

উদ্ভুত পরিস্থিতিতে তার ক্রিকটীয় চিত্তে একটি প্রশ্নই বারবার উঁকি দিচ্ছে, ‘তাহলে আমাদের ক্রিকেটের উন্নতিটা হলো কোথায়?’

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button