খেলা

ডমিঙ্গোনামা

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

স্টিভ রোডসের দিক নির্দেশনায় ২০১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের ভরাডুবির পর ওই বছরের আগস্টে টাইগারদের প্রধান কোচের দায়িত্ব পান রাসেল ডমিঙ্গো। ধারণা করা হচ্ছিল অনতিবিলম্বেই টিম বাংলাদেশকে কক্ষপথে ফিরিয়ে বিশ্বকাপে বিভৎস পারফরম্যান্সের গ্লানি মুছে দিবেন। কিন্তু হায়! এরপর ১৯ মাস কেটে গেলেও দক্ষিণ আফ্রিকান এই কোচ উল্লেখ করার কোনো মতো সাফল্য দলকে এনে দিতে পারেননি। দেশের বাইরে তো বটেই দেশের মাঠেও শিষ্যদের ব্যর্থতা লেগেই আছে। এতে করে প্রশ্ন উঠেছে তার দূরদর্শিতা ও সামর্থ্য নিয়ে। আদৌ কী তিনি তার ওপরে অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে পেরেছেন বা অদূর ভবিষ্যতে পারবেন?

বিজ্ঞাপন

তার আগে আসুন আমরা দেখে নেই ১৯ মাসের এ সময়টিতে হেড কোচ হিসেবে তার অধীনে তিন ফরম্যাটে টিম টাইগার্স কয়টি ম্যাচ খেলেছে, কয়টিতে হেরেছে, জিতেছেই বা কয়টিতে?

যদিও তার শুরুটা হয়েছিল ভীষণ বিব্রতকর এক হার দিয়ে। সেটা ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসের কথা। টাইগারদের ডেরায় যোগ দিয়েই দেশের ‘লাকি ভেন্যু’ চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে এক মাত্র সিরিজের টেস্টে ‘পুঁচকে’ আফগানদের কাছে শিষ্যদের ২২৪ রানের হার হজম করতে হয়েছিল ডমিঙ্গোকে।

বিজ্ঞাপন

ডমিঙ্গোনামা

এরপর থেকে আজ অবধি সাদা পোষাকে আরও ৪ সিরিজে ৬টি ম্যাচ খেলেছে লাল সবুজের দল। যেখানে জয় ধরা দিয়েছে কেবল কেবল ১টি সিরিজে (জিম্বাবুয়ে, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি, একমাত্র টেস্ট)। বাকি ৩ সিরিজের (বাংলাদেশ-ভারত, বাংলাদেশ-পাকিস্তান, বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ৫ ম্যাচেই জয়শূন্য বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন

এবার আসা যাক ওয়ানডে ম্যাচের পরিসংখ্যানে। ডমিঙ্গোর যোগদানের পরে ৫০ ওভারের ক্রিকেটে ৩ সিরিজে মোট ৯টি ম্যাচ খেলেছে টিম বাংলাদেশ। যেখানে জয় দুই সিরিজের ৬ ম্যাচে। অপর সিরিজের তিন ম্যাচে হার। যে দুটি সিরিজ টাইগাররা জিতেছে এর একটি ছিল ২০২০ সালের মার্চে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

মাশরফি বিন মুর্তজার নেতৃত্বের বিদায়ী ওই সিরিজটি ৩-০ ব্যবধানে নিজেদের করে নিয়েছিল স্বাগতিকরা। অপরটি ছিল, চলতি বছরের শুরুতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। ঢাকা ও চট্টগ্রামে গড়ান তিন ম্যাচ সিরিজের ওয়ানডে সিরিজ দাপুটের সঙ্গেই জিতে নেয় তামিম ইকবাল অ্যান্ড কোং। এরপর সবশেষ নিউজিল্যান্ড সফরে ওয়ানডে সিরিজে কী হলো তা বোধ করি সবাই জানেন (৩-০ তে হোয়াইটওয়াশ বাংলাদেশ)।

বিজ্ঞাপন

ডমিঙ্গোনামা

এরপর আসা যাক টি-টোয়েন্টির পরিসংখ্যানে। এখানকার চিত্রও টেস্টের মতোই হতাশাব্যঞ্জক। দ্বিপাক্ষিক সিরিজের ১১ ম্যাচ থেকে জয় এসেছে মাত্র ৩টিতে। বাকি ৮ ম্যাচেই হার। যে তিন ম্যাচে জিতেছে এর একটি ছিল ২০১৯ সালের নভেম্বর ভারত সফরে। অপর দুটি গেল বছরের মার্চে, মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।

বিজ্ঞাপন

ডমিঙ্গোর অধীনে ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশ, আফগানিস্তান ও জিম্বাবুয়ের অংশগ্রহণে তিন জাতির টুর্নামেন্ট আয়োজন করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবি। যেখানে চার ম্যাচের ১টিতে হেরেছিল বাংলাদেশ। ওই হারটি ছিল আফগানিস্তানের বিপক্ষে।

সারাবাংলা/এমআরএফ/এসএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button