খেলা

মুম্বাইয়ের টানা দ্বিতীয় জয়

স্পোর্টস ডেস্ক

চার-ছক্কার ফুলঝুড়ি উপভোগ করতেই টি-টোয়েন্টি খেলা দেখতে বসেন দর্শকরা। আইপিএলের মতো টুর্নামেন্টে সেই প্রত্যাশা থাকে আরও বেশি। কিন্তু কদিন ধরে সেই প্রত্যাশা পূরণ হচ্ছে না আইপিএলের দর্শকদের। টানা কয়েকদিন ধরে লো স্কোরিং ম্যাচ দেখা যাচ্ছে আইপিএলে। আজ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স বনাম সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের মধ্যকার ম্যাচেও বড় স্কোর হয়নি। অল্প রানের ম্যাচটা ১৩ রানে জিতেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই।

বিজ্ঞাপন

জয় দিয়ে এবারের আইপিএল শুরু করতে পারেনি রোহিত শর্মার মুম্বাই। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে হারতে হয়েছে বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে। তারপর দুই ম্যাচ খেলে দুটিতেই জিতল রোহিতের দল।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) চেন্নাইয়ের এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাটিং করে ১৫০ রান তুলতে পেরেছে মুম্বাই। স্লো উইকেটে রানের জন্য সংগ্রম করতে হয়েছে ব্যাটারদের। রোহিত শর্মা ও কুইন্টন ডি ককের ওপেনিং জুটি ৬.৩ ওভারে তোলে ৫৫ রান। স্লো শুরুর পর রোহিত ২৫ বলে ৩২ রান করে ফিরলে ইশান কিশান ২১ বলে ১২ রানের একটা ভূতুরে একটা ইনিংস খেলে মুম্বাইকে আরও পিছিয়ে দেন।

বিজ্ঞাপন

পরে কাইরন পোলার্ড, হার্দিক পান্ডিয়ারা সেই ক্ষতি আর ঠিকভাবে পোষাতে পারেননি। পোলার্ড ২২ বলে ৩২ রান করেন। হার্দিকের ব্যাট থেকে আসে ৭ রান। কুইন্টন ডি কক ৩৯ বলে ৪০ রান করেন। হায়দ্রাবাদের হয়ে ১৯ রানে দুই উইকেট নিয়েছেন বিজয় শঙ্কর।

পরে জবাব দিতে নেমে হায়দ্রাবাদের শুরুটা ভালোই হয়। জনি বেয়ারস্টো ও ডেভিড ওয়ার্নারের ওপেনিং জুটি ৬৭ রান তোলেন। বেয়ারস্টো ২২ বলে ৩টি চার ৪টি ছয়ে ৪৩ রান করে ফিরেন। তারপরই হায়দ্রাবাদের লাগাম টেনে ধরেন জাসপ্রিত বুমরাহ, রাহুল চাহার ও ট্রেন্ট বোল্টরা।

বিজ্ঞাপন

প্রথম উইকেট হারানোর পর নিয়মিত বিরতিতে উইকটে হারানো হায়দ্রাবাদকে শেষ দিকে দাঁড়াতেই দেননি জাসপ্রিত বুমরাহ ও ট্রেন্ট বোল্ট। ১৯.৪ ওভারে ১৩৭ রানে গুটিয়ে যায় হায়দ্রাবাদ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেছেন ডেভিড ওয়ার্নার।

মুম্বাইয়ের হয়ে রাহুল চাহার ৪ ওভারে ১৯ রান খরচায় ৩ উইকেট নিয়েছেন। বোল্ট তিন উইকেট নিয়েছেন ২৮ রানে। বুমরাহ ১ উইকেট পেলেও চার ওভারে রান খরচ করেছেন মাত্র ১৪টি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস


Source link

আরো সংবাদ

Back to top button